Press "Enter" to skip to content

জোর করে মহিলাকে দিয়ে রান্না করিয়ে স্বাদ পছন্দ না হওয়ায় পুড়িয়ে মারল তালিবান


নয়া দিল্লিঃ রয়েছে তালিবানে! আফগানিস্তানে কবজা করার পর দৈনিকই তালিবানের নিষ্ঠুর চেহারা সামনে আসছে। বিশেষ করে মহিলাদের উপর অত্যাচার দিন দিন বেড়েই চলেছে তালিবান শাসিত আফগানিস্তানে। আর এরই মধ্যে তালিবান থেকে এক মর্মান্তিক ঘটনা সামনে আসছে। সেখানে এক মহিলাকে জ্যান্ত জ্বালিয়ে  দেওয়ার অভি উঠেছে তালিবানি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে।

জানা গিয়েছে যে, মহিলার রান্না করা খাবার পছন্দ হয়নি বলেই তালিবানি জঙ্গি মহিলাকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মেরে ফেলে। বলে দিই, আমেরিকান সেনা আর আশরফ গনির সরকারের মদত করা মানুষদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খুঁজছে তালিবানরা। আর সেই সূত্রেই কয়েকজন জঙ্গি এক মহিলার বাড়িতে ঢুকে তাঁকে রান্না করার নির্দেশ দেয়।

রিপোর্ট অনুযায়ী, তালিবানের নির্দেশের পর রান্না করা শুরু করে। কিন্তু সেই রান্না যখন চেখে দেখে তালিবানরা, তখন তাঁদের স্বাদ পছন্দ হয় না। আর এই কারণে ক্ষুব্ধ জঙ্গিরা মহিলাকে জ্যান্ত জ্বালিয়ে দেয়। প্রাক্তন আফগানি বিচারক তথা মহিলা সুরক্ষার সঙ্গে জড়িত অভিযানের প্রধান নজলা আয়ুবি জানান, ‘শুধুমাত্র খাবার পছন্দ না হওয়ার কারণে তালিবানিরা ওই মহিলাকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারে।”

নজলা আয়ুবি বলেন, আফগানিস্তান থেকে প্রতিদিনই ভয়ানক সামনে আসছে। জঙ্গিরা মহিলাদের উপর অত্যাচার করছে। ওঁরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিজেদের জন্য খাবার বানাতে বলছে। শুধু তাই নয়, ওঁরা সাধারণ নাগরিকদের রেশনও লুঠ করছে। আয়ুবি জানান, তালিবানি জঙ্গিরা জোর করে মেয়েদের উঠিয়ে নিয়ে যাচ্ছে আর তাঁদের বিয়ে করছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

প্রাক্তন বিচারক বলেন, ‘বিগত কয়েকদিনে বহু যুবতীকে যৌনদাসী বানানোর জন্য প্রতিবেশী দেশে পাঠানো হয়েছে।” বলে দিই, কাবুলে তালিবানের কবজা হওয়ার পরই দেশের মানুষ চরম আতঙ্কে ভুগছে। সবাই কোনোক্রমে দেশ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করছে। বিশেষ করে মহিলারা। আর তালিবানিরা তাঁদের উপর চরম অত্যাচারও করছে।