Press "Enter" to skip to content

জয়া দত্তের বাইক ভাঙা থেকে শুরু করে, TMC নেতাদের পকেটে ব্লেড! ত্রিপুরা নিয়ে সাফাই দেবাংশুর


কলকাতাঃ ত্রিপুরা (Tripura) নিয়ে সরগরম আগরতলা আর কলকাতার রাজনীতি। বিশেষ করে গত শনিবার আমবাসায় (All India ) যুব নেতাদের উপর হওয়া হামলার পর -তৃণমূল তরজা আরও বেড়েছে। এমনকি ত্রিপুরার আগুন ছড়িয়েছে দিল্লী পর্যন্ত। সংসদে তৃণমূলের সাংসদরা এই ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদও জানিয়েছে। আবার পাল্টা যুক্তি দিয়েছে বিজেপিও।

এত কিছুর পর এবার তৃণমূলের যুবনেতা াংশু ভট্টাচার্য ত্রিপুরায় ঘটে যাওয়া সেদিনের ঘটনা ফেসবুক লাইভে এসে সাফাই দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন যে কেন সেদিন তিনি পকেটে ব্লেড থাকার কথা বলেছিলেন, পাশাপাশি তৃণমূল নেত্রী জয়া দত্তের বাইক ভাঙার ভিডিও নিয়েও সাফাই দিতে দেখা গিয়েছে ওনাকে।

ফেসবুক লাইভে এসে দেবাংশু বলেন, কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার দরকার। সেটারই জবাব দিতে এসেছি। দেবাংশু বলেন, ‘হ্যাঁ আমি লাইভে এসে বলেছিলাম আমাদের পকেটে ব্লেড রয়েছে, আপনারা কী চান আমরা আত্মহত্যা করি?” দেবাংশু যুক্তি দেন যে, সুদীপের মাথা ফাটার সময় আমরা তাঁকে আগরতলায় ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি, কিন্তু পুলিশ আমাদের সহযোগিতা না করায় আমি এই কথা বলেছিলাম। দেবাংশু এও বলেন, আমাদের কাছে কোনও ব্লেড ছিল না। থাকলে থানায় আটকে রাখার সময় আমাদের থেকে পুলিশ ব্লেড উদ্ধার করত।

এরপর জয়া দত্তের বাইক ভাঙার কথা উল্লেখ করে দেবাংশু বলেন, বিজেপির যেই গুণ্ডারা আমাদের উপর হামলা করেছিল, তাঁদের মধ্যে সবাই পালিয়ে গেলেও একজন যেতে পারেনি। আর তাঁর বাইকই সেখানে পড়েছিল। জয়া দি সেই বাইকই ভাঙচুর করে।

এরপর দেবাংশু সুদীপ রাহার প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, আমি বলেছিলাম মাথার পিছনে লেগেছে পাথর লেগেছে। মাথার পিছনে পাথর লাগলে মাথার সামনে লাল হয়ে গেল কেন? মাথার সামনে সেই রঙ টা দেখতে পারছেন সেটা রক্ত না। সেটা লাল ওষুধ।

এরপর থানায় জল দেওয়ার প্রসঙ্গে দেবাংশু বলেন। থানায় জল দেওয়ার যেই ছবি বা ভিডিও আপনারা দেখাচ্ছেন সেটা আগের। আপনারা ভুলে যাবেন না যে, আমরা ত্রিপুরায় আট দিন ছিলাম। আমবাসার ঘটনার আগে আমরা পুলিশের কাছে ডেপুটেশন জমা দিতে গিয়েছিলাম। তখনকার দৃশ্য সেটি।