Press "Enter" to skip to content

তফসিলিদের বাঁচানোর আর্জি! তৃণমূলের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিতে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি ১১৪ SC/ST প্রফেসরের


নয়া দিল্লীঃরাজ্যে () পরবর্তী হিংসার (Post Poll Violence) মামলায় তফসিলি জাতি/উপজাতি বর্গের ১১৪ জন অধ্যাপক রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দকে ( Nath Kovind) চিঠি লিখেছেন। চিঠিতে তাঁরা তৃণমূলের (All India Trinamool Congress) বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার সাংবাদিক রোহন দুয়া সেই চিঠি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেছেন। চিঠি অনুযায়ী, নির্বাচনের পর রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার ১১ হাজার মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন, আর ৪০ হাজার মানুষ প্রভাবিত হয়েছে। এদের মধ্যে বেশীরভাগই তফসিলি জাতিভুক্ত। এছাড়াও ভোট পরবর্তী হিংসার ১ হাজার ৬২৭টি মামলা দায়ের হয়েছে, সেটারও উল্লেখ করা হয়েছে চিঠিতে।

চিঠিতে লেখা হয়েছে যে, ৫ হাজার বেশী বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। ২৬ জনের প্রাণ গিয়েছে। আর ২ হাজারের বেশী মানুষ প্রাণ ভয়ে অসম, ঝাড়খণ্ড এবং ওড়িশায় গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। চিঠি অনুযায়ী, তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা রাজ্যের প্রশাসনের সাহায্যে তফসিলি সম্প্রদায়ের মানুষের উপর চরম অত্যাচার করেছে, তফসিলি মহিলাদের ধর্ষণ করেছে, তাঁদের জমিতে কবজা করে নিয়েছে। আর এই কারণেই অধ্যাপকরা তফসিলি সম্প্রদায়ের মানুষকে বাঁচাতে হস্তক্ষেপ চায়।

চিঠিতে এও বলা হয়েছে যে, SC/ST সম্প্রদায়ের যারা এই ভোট পরবর্তী হিংসায় প্রভাবিত হয়েছে, তাঁদের বাড়িঘরের পুননির্মাণ করে পুনর্বাসের কাজ করা হোক। পাশাপাশি নিগৃহীতদের মেডিক্যাল সুবিধা এবং প্রাথমিক সুবিধা উপলব্ধ করানো হোক। বলে দিই, সেন্টার ফর সোশ্যাল ডেভলেপমেন্ট (CSD) এর তরফ থেকে এই চিঠি লেখা হয়েছে। এই চিঠিতে দিল্লী ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন প্রফেসরদের স্বাক্ষর আছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এর আগেও ১৪৬ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দকে চিঠি লিখে বাংলার হিংসা নিয়ে অবগত করিয়েছিলেন। ওই ১৪৬ জনের মধ্যে প্রাক্তন আমলা, প্রাক্তন বিচারপতি, প্রাক্তন কূটনৈতিকবীদ সহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের স্বাক্ষর ছিল। এছাড়াও দেশের ২ হাজার ৯৩ জন মহিলা আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখে বাংলার হিংসার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন।