Press "Enter" to skip to content

তালিবানদের নিষিদ্ধ করল ফেসবুক! Whatsapp, Instagram-ও ব্যবহার করতে পারবে না তাঁরা


সোশ্যাল মিডিয়ার দিজ্ঞজ কোম্পানি জানিয়েছে যে, তালিবানকে সমর্থন করা সমস্ত কন্টেন্টে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। কারণ একটি মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ওঁই গ্রুপ ের প্রশংসক বলে দাবি করা হয়েছে। কোম্পানি জানিয়েছে, তাঁদের কাছে জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত কন্টেন্টের নজরদারি করা আর সেগুলোকে হটানোর জন্য তাঁদের কাছে আফগান বিশেষজ্ঞদের একটি দল রয়েছে।

ফেসবুকের এক মুখপাত্র বিবিসিকে জানিয়েছেন, বছরের পর বছর ধরে নিজেদের বার্তা ছড়ানোর জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার করে আসছে। আমেরিকার আইন অনুযায়ী, তালিবান একটি জঙ্গি সংগঠন হিসেবে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত। আর সেই কারণে আমরা আমাদের পরিষেবা থেকে তাঁদের সরিয়ে দিয়েছি। এর মানে এই যে, আমরা তালিবান দ্বারা তাঁদের তরফ থেকে বানানো অ্যাকাউন্টসকে মুছে ফেলব আর তাঁদের প্রশংসা এবং সমর্থন করা প্রতিনিধিদের ফেসবুক থেকে নিষিদ্ধ করব।

মুখপাত্র জানিয়েছেন, আমাদের কাছে আফগানিস্তান বিশেষজ্ঞদের একটি টিম রয়েছে, যারা স্থানীয় ভাষা বলা এবং বোঝার জ্ঞান রাখে। ওঁরা আমাদের প্ল্যাটফর্মে তালিবানের প্রচারে ব্যবহৃত সামগ্রী চিহ্নিত করে আমাদের সতর্ক করতে সাহায্য করছে।

ফেসবুক এটাও জানিয়েছে যে, এই নীতি তাঁদের সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে লাগু হয়। যার মধ্যে ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপও রয়েছে। যদিও এমনও খবর রয়েছে যে, তালিবানরা নিজেদের বার্তা পৌঁছে দেওয়ার জন্য হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার করছে। এই প্রসঙ্গে ফেসবুক জানিয়েছে, যদি ওই অ্যাপের কোনও অ্যাকাউন্ট তালিবানের গোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত থাকে, তাহলে তাঁর উপর অ্যাকশন নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, তালিবান জঙ্গি সংগঠন এখন গোটা আফগানিস্তানকেই নিজেদের কবজায় নিয়ে নিয়েছে। রবিবার তাঁরা রাজধানী ে ঢুকে পড়ে। এরপর নিরীহ আফগানিরা প্রাণ বাঁচাতে দেশ ছাড়ার জন্য বিমানবন্দরে ভিড় জমায়। আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট সহ সমস্ত বড়বড় আধিকারিকরাও তালিবানদের ভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। এছাড়া, বিভিন্ন দেশের নাগরিকদেরও দেশ থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।