Press "Enter" to skip to content

“তালিবানের আফগানিস্তান জয় আমেরিকার জন্য বড়ো হার”- বাইডেনকে আক্রমন ট্রাম্পের


মার্কিন সেনারা সরে যাওয়ায় অতি দ্রুত তৎপরতার সঙ্গে ের দখল নিয়েছে তালিবান। বিগত দশ দিনে তড়িৎ গতিতে চতুর্দিক থেকে ঘিরে রাজধানী কাবুল দখল করেছে তালিবান। এহেন গুরুগম্ভীর পরিস্থিতিতে তাৎপর্যপূর্ণ টুইট করেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্্প। তিনি লিখলেন, ‘মিস মি ইয়েট’ তাঁর উত্তরসূরি জো বাইডেনকে কটাক্ষ করেই ওই টুইট করেছেন ট্রাম্প তা স্পষ্ট। ট্রাম্প বলেছেন তালিবানের আফগানিস্তান দখল আমেরিকার জন্য বড়ো হার।

এই মুহূর্তে বাইডেনের সিদ্ধান্তের সমালোচনায় মুখর গোটা বিশ্ব। বিশেষজ্ঞ মহল দাবি করেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের হঠাৎ এই সিদ্ধান্তের জন্যই ২০ বছর পর আফগান মুলুকে দখল নিল তালিবান সংগঠন। আফগানরাও ধিক্কার জানিয়েছেন বাইডেন প্রশাসনকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ্ডিং হয়ে উঠেছে #AfghanistanBurning।

নেটিজেনরা কয়েকদিন ধরেই বাইডেন-হ্যারিস প্রশাসনের নিন্দা করছেন। এদিন কাবুলের দখল তালিবানের হাতে চলে যাওয়াতে সেই ক্ষোভ আরও বেড়েছে। আন্তর্জাতিক স্তরেও আলোচনা শুরু হয়েছে বিষয়টি নিয়ে। এর‌ই মধ্যে ট্রাম্পের এই কটাক্ষ অনেকটা কাঁটা ঘায়ে নুনের ছিটে।

বিগত ২০ বছর ধরে প্রায় দু’ ট্রিলিয়ন মার্কিন খরচ আটকানো হয়েছিল তালিবানদের। ২০ বছরে প্রায় ২৫০০ জন মার্কিনী মারা গিয়েছে। ৯/১১ এর পর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশের নির্দেশ মোতাবেক মার্কিন সেনা প্রবেশ করেছিল আফগানিস্তানে। কঠোর হাতেদমন করা হয়েছিল তালিবান রাজ। তারপর দক্ষতার সঙ্গে মার্কিন, ব্রিটিশ এবং NATO ট্রুপ তালিবানদের দাপট থামিয়ে দিয়েছিল।। কিন্তু বাইডেনের নির্দেশে মার্কিন সেনা সেখান থেকে সরে যায়। এরপরেই তালিা শুরু করে তাদের খেল।

জালালাবাদের দখল নেওয়ার পর কাবুল সীমান্তে যখন তালিবান সংগঠন পৌঁছায়, তখন মার্কিন দূতাবাসে হেলিকপ্টার নামিয়ে কূটনীতিকদের সরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়। যা দেখে অনেকেই সমালোচনা করেছেন। তাদের মধ্যে অন্যতম ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্প একটি বিবৃতিতে বলেছেন, দুর্বলতা, অযোগ্যতা এবং কৌশলগত অসঙ্গতির ব্যর্থতা ফুটে উঠেছে। অবশ্য পূর্বসূরীর এই অভিযোগের পাল্টা প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি বর্তমান প্রেসিডেন্টের থেকে।আমেরিকার টপ সেনেট রিপাবলিকান মিচ ম্যাককনেল বলেছেন, ‘বাইডেন বিরাট এক ধবংস লীলাকে নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন। ওই বিপদ অনায়াসে ঠেকানো যেত কিন্তু তিনি তা করেননি। বরং অনেক আগেই থেকেই বোঝা যাচ্ছিল তাঁর এই ছেলেমানুষী সিদ্ধান্তের অবশ্যম্ভাবী পরিণতি ভীষণ ভয়ানক।