Press "Enter" to skip to content

তালিবানের জন্য খাজানা ভান্ডার খুলে দিল চীন! করল ৩১ মিলিয়ন ডলার সাহায্যের ঘোষণা


আফগানিস্তানে গঠনের পর বড় ধরনের সহায়তা করবে বলে ঘোষণা করেছে চীন। খাদ্য সরবরাহের পাশাপাশি ের টিকাসহ জরুরী সহায়তার জন্য ৩১ মিলিয়ন (২০ কোটি ইউয়ান) সাহায্য করবে বলে জানিয়েছে বেইজিং।

গত বুধবার বৈঠকের পর চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়াং ই সহায়তার পরিমাণ ঘোষণা করেছে। তিনি বলেছেন, আফগানিস্তানে অন্তর্বর্তীকালীন নয়া সরকার গঠনের পরবর্তীতে ওদেশে শান্তিশৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

ইয়াং ই বলেছেন, এই সহায়তার বাইরেও করোনা মহামারী প্রতিরোধের জন্য অন্তত ৩০ লাখ ডোজ টিকা পাঠাবে চীন। বৈঠকে পাকিস্তান, ইরান, তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তানের প্রতিনিধিরাও হাজির ছিলেন। বাকি দেশগুলোকেও আফগানিস্তানের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে চীন।

এর আগে তালিবান মুখপাত্র জানিয়েছিল, চীন তাদের প্রকৃত বন্ধু। আফগানিস্তানে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার নিয়ে সমালোচনা করেছে চীন। তাদের অভিযোগ, আফগানিস্তান দখলের প্রথম দিন থেকে শুরু করে প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত মার্কিনরা ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে ওই দেশে।

তালিবান সরকার গঠনের আগে থেকেই তালেবানদের সঙ্গে একাধিক বৈঠকে বসেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রতিনিধি দল। ে দুই পক্ষের মধ্যে বৈঠক হয় । গত ২৮ জুলাই চীনা সফরে যান আফগানিস্তানের বর্তমান উপপ্রধানমন্ত্রী ও তালেবানদের রাজনৈতিক বিভাগের প্রধান আব্দুল গনি বারাদার ও একটি প্রতিনিধি দল। ওই সফরে কাবুলকে সমস্ত রকম সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেয় বেইজিং।

আফগানিস্তানকে “ী প্রজাতন্ত্র” ঘোষণার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, গ্রহণযোগ্যতা পেতে এখনও তালিবানদের অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। ইউরোপীয় ইউনিয়নও তালিবান সরকারকে খুশিমনে গ্রহণ করেনি। এসবের মাঝে চীনের এই ঘোষণা তালিবান সরকারের জন্য স্বস্তি বয়ে এনেছে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।