Press "Enter" to skip to content

তৃণমূলের ভোট ব্যাঙ্কে বড়সড় থাবা বিজেপির! গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন শতাধিক সংখ্যালঘু TMC কর্মী-সমর্থক


কলকাতাঃ মুর্শিদাবাদ, বহরমপুর বিধানসভা এলাকায় সংখ্যালঘু ভোটারদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম হল ি (Bharatiya Janata Party)। শনিবার কাশিমবাজারে বিজেপির একটি কর্মী সভায় শতাধিক মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষ তৃণমূল (All India trinamool Congress) ছেড়ে শিবিরে যোগদান করলেন। তৃণমূল থেকে নবাগতদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মুর্শিদাবাদ জেলার বিজেপির সাংগঠনিক সভাপতি গৌরিশঙ্কর ঘোষ।

শনিবার যারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন তাঁরা জানান, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উন্নয়নমূলক প্রকল্পে উদবুদ্ধ হয়েই তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাঁরা জানান, নরেন্দ্র মোদীর সবকা সাথ সবকা বিকাশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে তাঁরা বদ্ধপরিকর। আর কয়েকমাস পর রাজ্যে বিধানসভা ভোট, আর ঠিক তাঁর আগেই রাজ্যের সংখ্যালঘুরা বিজেপির প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার শাসক দলের যে চাপ বাড়বে সেটা বলাই বাহুল্য।

জানিয়ে দিই, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে কোমর বেঁধে নেমেছে বিজেপি। গত আটই অক্টোবর বিজেপির নবান্ন অভিযানের মাধ্যমে ের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির। এছাড়াও রাজ্যে দলের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে পুজোর আগেই বিজেপি প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ বাংলা আসবেন বলে জানা গিয়েছে।

এছাড়াও, বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দূর্গা পুজোতে এবার যোগ েন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও ()। ষষ্ঠীতে মায়ের বোধন। এই ষষ্ঠীতেই পুজোর আনন্দে সামিল হতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। প্রধানমন্ত্রী পুজোর অনুষ্ঠানে অংশ করলেও, থাকবেন মেগা ভার্চুয়াল সমাবেশের মাধ্যমে।

রাজ্য বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত কৈলাস বিজয়বর্গীয় দেশবাসীর উদ্দ্যেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর পুজোয় অংশগ্রহণের কথা জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, করোনা আবহের মধ্যেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই চলবে এই মেগা ভার্চুয়াল সমাবেশ। এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সমাবেশ শুরু করা হবে। তারপর থাকবে প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ।