Press "Enter" to skip to content

তৃণমূল দাদাগিরি করলে মেরে হাত-পা ভেঙে দিন, আমি মামলা লড়ব! হুমকি BJP বিধায়কের


বনগাঁঃ রাজনীতিতে কুকথার প্রচলন নতুন কিছু নয়। তবে একেবারে নেত্রীকে প্রকাশ্যে হুমকি দেওয়ার বিষয়টাও গুরুতর অপরাধ। আর এমনই এক কাজ করে চরম বিতর্কে জড়ালেন বনগাঁ দক্ষিণের বিজেপি (Bharatiya Janata Party) বিধায়ক (member of legislative assembly) স্বপন মজুমদার (Swapan Majumder)। শুক্রবার তিনি তৃণমূলের () মহিলা নেত্রী তথা বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি আলোরানী সরকারকে (Alo Rani Sarkar) হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন।

শুক্রবার পেট্রোপণ্যে ভ্যাট কমানোর দাবি নিয়ে গোপালনগর থানার ন’হাটা বাজারে একটি প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে বিজেপি। সেখানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বনগাঁ দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক স্বপন মজুমদার। সেই সভা থেকে স্বপনবাবু তৃণমূল নেত্রী আলোরানী সরকারকে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘আস্ত শরীর নিয়ে এলাকায় ফিরতে পারবেন না।”

বিজেপির বিধায়ক স্বপন মজুমদার ওই প্রতিবাদ সভা থেকে বলেন, ‘আমি সাবধান করে দিচ্ছি, আমাদের কোনও কর্মীর গায়ে হাত পড়লে বা তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হলে, তুমি আস্ত শরীর নিয়ে এলাকায় ফিরে যেতে পারবে না।” স্বপন মজুমদার তৃণমূল নেত্রী আলোরানীকে ব্যক্তিগত আক্রমণ পর্যন্ত করেন। তিনি বলেন, ‘তোমার স্বামী তোমাকে বাংলাদেশ থেকে তোমায় তাড়িয়ে দিয়েছে। ভারতে আসার পর যেখানে ছিলে, সেখান থেকেও লাথি খেয়েছ। আর এখন এখানে এসে এখন সন্ত্রাস ছড়ানোর চেষ্টা করছ।”

শুধু আলোরানী সরকারকেই না, তৃণমূলের নেতাদেরও চরম হুমকি দিয়েছেন বিজেপির বিধায়ক। তিনি দলীয় কর্মিদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তৃণমূলের কোনও নেতা যদি দাদাগিরি করতে আসে, তাঁকে মেরে হাত-পা গুঁড়িয়ে দিন। আমার কাছে আসবেন না। যদি মামলা হয়, তখন আমি ছাড়াতে যাব।”

অন্যদিকে, এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দেন আলোরানী সরকারও। তিনি বিজেপির বিধায়ককে কটাক্ষ করে বলেন, ‘একজন সোনা, গাঁজা পাচারকারী। অসমে জেলও খেটেছেন। ভুয়ো স্কুল সার্টিফিকেট দেখিয়ে ে দাঁড়িয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে আমি মামলাও করেছি। এরম মানুষের থেকে ভালো কিছু আর আশা করা যায় না। ওনার কথায় আমি কোনও উত্তর দিতে চাই না।”