Press "Enter" to skip to content

ত্রিপুরায় হোটেলে আটক করে টিম প্রশান্ত কিশোরের ২৩ সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ পুলিশের! ক্ষোভ প্রকাশ তৃণমূলের

২০২৩ সালে রয়েছে ত্রিপুরায় ৷ তার বহু আগে থেকেই কোমর বেঁধে সমীক্ষায় নেমেছে কুশলী প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাক। কিন্তু তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ত্রিপুরায় সমীক্ষা করতে গিয়ে আটক প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাকের ২৩ জন সদস্য৷ অভিযোগ উঠেছে, রবিবার রাত থেকে আগরতলার একটি ে তাদের আটকে রাখা হয়েছে। সেখান থেকে কোনোভাবেই তাদের বেরোতে দেয়নি ত্রিপুরা পশ্চিম থানার ৷ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব অভিযোগ তুলেছে, তৃণমূলকে ভয় পেয়েছে ি। তাই আইপ্যাকের সদস্যদের কাজে বাধা দানের জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে এই কাজ করছে সরকারের পুুলিশ৷

বঙ্গ জয়ের পর এবার ত্রিপুরার ওপর নজর রেখেছে ৷ সেই উদ্দেশ্যে রবিবার আগরতলায় পৌঁছে যান সংস্থার পক্ষ থেকে তেইশ জন সদস্য৷ আগরতলার উডল্যান্ড পার্ক হোটেলে ওঠেন তাঁরা৷ এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল কংগ্রেসের ত্রিপুরার সভাপতি আশিস লাল সিং বলেছেন, রবিবার রাতে রুটিন মাফিক তল্লাশির নাম করে আইপ্যাকের সদস্যদের একপ্রকার হেনস্থা করে ত্রিপুরা পশ্চিম থানার পুলিশ৷ এর পর আবার সোমবার সকালেও তারা হোটেল থেকে বেরোতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়৷ কিন্তু এই হেনস্থার বিরুদ্ধে ত্রিপুরা তৃণমূলের তরফে এখনও পর্যন্ত পাল্টা কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

আশিস লাল সিং আরও বলেন, ‘সমীক্ষার অধিকার সকলের আছে৷ কিন্তু বিজেপি এত‌ই ভীত ও আতঙ্কিত যে সবকিছুতেই ভূতের অস্তিত্ব দেখছে৷ রাতে একদফা হেনস্থার পর সকালেও ওদের বেরোতে দেওয়া হয়নি৷ এটা কোনও সুসভ্য দেশের আইন রক্ষকদের আচরণ হতে পারে? রুটিন তল্লাশির দোহাই দিয়ে এতগুলো মানুষকে এ ভাবে সারাদিন বদ্ধ ঘরে আটকে রাখা কি উচিত? এটা গণতন্ত্রের নামে পরিহাসমূলক ব্যবহার৷ ‘

যদিও এ বিষয়ে সরকারি তরফে কোনও বিবৃতি প্রকাশ করা হয়নি৷ পাশাপাশি আইপ্যাকের কর্তৃপক্ষও সরাসরি কোনও অভিযোগ তোলেননি৷ এর আগে একুশে জুলাই ত্রিপুরা তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্যদের বিজেপি আশ্রিত পুলিশ আক্রমণ করে বলে তৃণমূল অভিযোগ তুলেছিল এবং নেতৃবৃন্দের বক্তব্য ছিল, ত্রিপুরাতেও বিজেপি- তৃণমূলের মধ্যে সংঘাত বাড়াতে চাইছে বিজেপি। যদিও অভিযোগ ধোপে টেকেনি।