Press "Enter" to skip to content

ত্রিপুরায় তৃণমূলের উপর হামলা, কলেজে প্রচারে গিয়ে এবিভিপির হাতে মার খেল ঘাসফুলের প্রচারকরা

আগরতলাঃ একুশের ে জয়লাভ করার পর ত্রিপুরাকে পাখির চোখ করে রেখেছে কংগ্রেস। আর সেই সূত্রে বঙ্গ তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা এখন রোজই যাওয়া আসা করছে বিপ্লবের রাজ্যে। তৃণমূলের এই আনাগোনায় বারবার উত্তেজনা ছড়িয়েছে ত্রিপুরায়। আর এবার আরও একবার উত্তপ্ত হল সেই রাজ্যের রাজনীতি।

এবার আরও একবার ত্রিপুরায় আক্রান্ত তৃণমূল, এবার অভিের তির পরিচালিত ছাত্র সংগঠনের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, আগরতলায় তৃণমূলের ছাত্র নেত্রী সোলাঙ্কি সেনগুপ্ত সমেত কয়েকজনকে মারধর করা হয়েছে। এমনকি সোলাঙ্কিকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে এবিভিপির বিরুদ্ধে।

ের সামনেই তাঁদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। তবে তৃণমূলের ছাত্র নেত্রী সোলাঙ্কি নিরাপদে রয়েছে বলেই দাবি করেছে ত্রিপুরা পুলিশ। এই ঘটনা সামনে আসার পর বঙ্গ তৃণমূলের দুই নেতা কুণাল ঘোষ ও সাংসদ শান্তনু সেন আবারও ত্রিপুরা যাচ্ছেন।

জানা গিয়েছে, শনিবার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস হিসেবে কলেজে কলেজে প্রচার চালাচ্ছিল তৃণমূলে ছাত্র নেতা/নেত্রীরা। তাঁরা আগরতলার মহারাজা বীর বিক্রম কলেজেও প্রচারে যায়। আর সেখানে যাওয়া মাত্রই এবিভিপির সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশের সামনে তৃণমূল নেত্রীকে মারধরের অভিযোগ ওঠে এবিভিপির সদস্যদের বিরুদ্ধে। এমনকি তৃণমূল ছাত্র নেত্রী সোলাঙ্কি সেনগুপ্তকে তুলে নিয়ে যাওয়ারও অভিযোগ উঠেছে। তবে পুলিশ জানিয়েছে যে সোলাঙ্কি নিরাপদেই রয়েছে।