Press "Enter" to skip to content

দিল্লিতে কৃষক আন্দোলনে যোগ দিতে যাওয়া বাংলার মেয়ের গনধর্ষণে অভিযুক্ত নেতার আত্মসমর্পণ

নয়া দিল্লিঃদিল্লির টিকরি বর্ডার গণধর্ষণ মামলায় মুখ্য অভিযুক্তদের মধ্যে একজন কিষান সোশ্যাল আর্মির নেতা অঙ্কুর সাঙ্গওয়ান বুধবার বাহাদুরগড় আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। পুলিশ তাঁকে খুঁজে দেওয়ার জন্য ২৫ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল। পুলিশের আবেদনে আদালত তাঁকে রিমান্ডে পাঠিয়েছে।

মামলার তদন্তে থাকা SIT প্রধান ডিএসপি পবন কুমার বলেন, ২০২১-র মে মাসে বাহাদুরগড় থানায় গণধর্ষণের মামলা দায়ের হয়েছিল। ধর্ষণের পর যুবতী করোনায় আক্রান্ত হয় আর এরপর তাঁর মৃত্যু হয়। নির্যাতিতার বাবা SIT-কে জানিয়েছিলেন যে, ওনার মেয়ে অনুপ সিং আর অনিল মালিক নামের দুই ব্যক্তির সঙ্গে কিষান সোশ্যাল আর্মির একটি তাবুতে থাকত। সেই তাবুতেই তাঁর সঙ্গে নির্যাতন করা হয় আর তাঁকে ধর্ষণ করা হয়। অনুপ সিং আম আদমি পার্টির নেতা আর অঙ্কুর সাঙ্গওয়ান কিষান সোশ্যাল আর্মির প্রধান নেতা। এই বছরের ৩০ এপ্রিল যুবতী বাহাদুরগড়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্ ত্যাগ করে।

বলে দিই, অনিল মালিককে এর আগেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর এই ঘটনায় অভিযুক্ত জগদীশ নামের এক ব্যক্তি এখনও পলাতক। অঙ্কুর আদালতে আত্মসমর্পণ করার পর জানিয়েছে যে, ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে সে টিকরি বর্ডারে যায় আর সেখানে বাকি অভিযুক্তদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কিষান সোশ্যাল আর্মির প্রতিষ্ঠা করে।

উল্লেখ্য, টিকরি বর্ডারে গণধর্ষণের শিকার হওয়া যুবতী থেকে দিল্লি গিয়েছিল দেবে বলে। ১২ এপ্রিল ে করে সে রাজধানীর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল। কিন্তু রাজধানী পৌঁছে চরম নৃশংসতার সাক্ষী হতে হয় তাঁকে। যাদের সঙ্গে আন্দোলনে শামিল হওয়ার কথা ছিল, তাঁরাই তাঁকে গণধর্ষণ করে। এরপর ওই যুবতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩০ এপ্রিল মারা যায়।