Press "Enter" to skip to content

দিল্লী জয়ের লক্ষ্যে আমূল পরিবর্তন? সাংবাদিক বৈঠকে ‘জাতীয় পতাকা” রাখা শুরু মুখ্যমন্ত্রীর


ঃ কোভিডকালে প্রায়শই মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নবান্নের সভাঘর থেকে প্রেস কনফারেন্সে করতে দেখা গিয়েছে। সেই প্রেস কনফারেন্সে থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্পের সূচনা, ের বঞ্চনা এবং রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে কী পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার সেটা নিয়ে অবগত করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এই প্রেস কনফারেন্সে আমূল একটি পরিবর্তন এসেছে, সেটা লক্ষ্য করেছেন কী?

আসলে এর আগে মুখ্যমন্ত্রীকে যতবার প্রেস কনফারেন্সে করতে দেখা গিয়েছিল, ততবার ওনার পিছনে শুধু পশ্চিমবঙ্গ সরকারের লোগো দেখা যেত। কিন্তু বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর প্রেস কনফারেন্সে ওনার দুপাশে বড় বড় চারটি জাতীয় পতাকা দেখা যায়। আচমকাই এই পরিবর্তন নিয়ে রাজনীতির অলিন্দে অনেক গুঞ্জন উঠছে। দিল্লী জয়ের লক্ষ্যেই কী এই পরিবর্তন? সেটা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

তবে, এটাই প্রথম না যে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকে জাতীয় পতাকা দেখা গেল। মাস খানেক আগেও মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক বৈঠকে জাতীয় পতাকা দেখা গিয়েছিল। তবে সেটি ওনার টেবিলে। সেটি তুলনামূলক ভাবে অনেক ছোট ছিল। আর সেটি মুখ্যমন্ত্রীর একেবারে সামনে ছিল। কিন্তু এবার স্থান পরিবর্তন হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাক ড্রপে আরও বড় চারটি জাতীয় পতাকা দেখা গেল।

প্রধানমন্ত্রী তথা বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সচিবালয়ের ব্যাকড্রপে যেমন জাতীয় পতাকা দেখা যায়, তেমনই এবার দেখা গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাংবাদিক বৈঠকে। উল্লেখ্য, একুশের মহারণে জয়ের পর তৃণমূল আর শুধুমাত্র বাংলায় আটকে থাকতে চায় না। এবার তাঁরা জাতীয় স্তরে দলকে মজবুত করার জন্য তৎপর হয়েছে। আর সেই কারণেই হয়ত আচমকাই এই পরিবর্তন দেখা গিয়েছে।

যদিও, ঘনিষ্ঠ মহলের তরফ থেকে ভিন্ন মত মিলেছে। তাঁদের মতে গতকালের সাংবাদিক বৈঠকে নোবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতির কারণেই এই পরিবর্তন আনা হয়েছে। অভিজিৎবাবুর মতো একজন আন্তর্জাতিক স্তরের মানুষের উপস্থিতিতেই এই বদল আনা হয়েছে বলে মত তাঁদের। তবে তাঁরা এও স্বীকার করেছে যে, এভাবে জাতীয় পতাকা রেখে মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক বৈঠকের ঘটনা আগে ঘটেনি।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, শুধু অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য না, মুখ্যমন্ত্রী এই কাজ করে গোটা দেশকে বার্তা দিতে চেয়েছেন। তাঁদের মতে, একুশে জয়ের পর দিল্লী থেকে সরকার হটানোর জন্য সমস্ত দলগুলিকে এক করার লক্ষ্যে নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই কারণেই তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার বিশেষ বার্তা দিতেই সাংবাদিক বৈঠকে জাতীয় পতাকা রাখার চল শুরু করছেন।