Press "Enter" to skip to content

দিল্লী দাঙ্গায় নাম জড়াল সালমান খুরশিদ আর বৃন্দা কারাতের, উঠেছে উস্কানি মূলক ভাষণ দেওয়ায় অভিযোগ

নয়া দিল্লীঃ দিল্লী পুলিশের দাবি অনুযায়ী,  সিএএ-এর বিরুদ্ধে ধরনা প্রদর্শনের সময় কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা সলমান খুরশিদ (), উদিত রাজ আর বাম নেত্রী () এর মতো নেত্রীরা উসকানি মূলক ভাষণ দিয়েছিলেন। দিল্লী পুলিশ দাবি করেছে যে, দিল্লী দাঙ্গায় দাখিল অভিযোগ পত্রে কংগ্রেস নেত্রী ইশরাত জাহান আর খালিদ সৈফি এবং অন্যান্য সাক্ষীর বয়ানের উপর ভিত্তি করে বানানো হয়েছে।

কড়কড়ডুমা আদালতে দাখিল চার্জশিটে প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ ইশরাত জাহান আর অন্যান্য সাক্ষীর বয়ানের কথা উল্লেখ করে দিল্লী পুলিশ জানিয়েছে যে বৃন্দা কারাত, সালমান খুরশিদ আর উদিত রাজের মতো নেতাদের নাম নিয়েছে এরা।

চার্জশিটে বলা হয়েছে যে, সুরক্ষিত সাক্ষীরা নিজেদের বয়ানে বলেছেন উদিত রাজ, সলমান খুরশিদ আর বৃন্দা কারাতের মতো বড় নেতা/নেত্রী এবং JNU এর প্রাক্তন ছাত্র নেতা উমর খালিদ ধরনা স্থলে এসেছিল আর সিএএ তথা এনপিআর এর বিরুদ্ধে ভাষণ দিয়েছিল।

আরেকদিকে চার্জশিটে এও বলা হয়েছে যে, ইশরাত জাহ্ন নিজের বয়ানে বলেছেন যে, সিএএ বিরোধী ধরনাকে দীর্ঘ করার জন্য সলমান খুরশিদ, পরিচালক রাহুল রয়, ভিম আর্মি সদস্য হিমাংশু, চন্দন কুমার সমেত অনেক নেতাকে সে আর খালিদ সৈফি মিলে জামিয়া কোঅর্ডিনেশন কমিটির কথামত আমন্ত্রণ করেছিল। এরা উসকানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন, যেই কারণে ধরনায় বসা সবাই সরকারের বিরুদ্ধে হয়ে যায়।

পুলিশ খালিদ সৈফির বয়ানের কথা উল্লেখ করে বলেন, জানুয়ারি ২০২০ তে সিএএ বিরোধী ধরনায় স্বরাজ অভিযানের নেতা যোগেন্দ্র যাদব, আপ নেতা প্রশান্ত ভূষণ, সলমান খুরশিদ ভাষণ দিতেন। সৈফির বয়ানে এও বলা হয়েছে যে, ধরনাকে দীর্ঘ করতে খুরশিদ, শারজিল ইমাম, জামিয়া কোঅর্ডিনেশন কমিটির সদস্য মীরান হায়দার কে ধরনা স্থলে ডাকা হয়েছিল। এদের সৈফি আর ইশরাত জাহান ডেকেছিল।