Press "Enter" to skip to content

দেশের মানুষের প্রথম পছন্দ নরেন্দ্র মোদী, একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় ফের ক্ষমতায় আসার ইঙ্গিত সমীক্ষায়

নয়া দিল্লীঃ করোনার সঙ্কটের মুখোমুখি ভারতে এখন ভ্যাকসিনেশনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ২০২১ সালে দেশের অনেক রাজ্যেই বিধানসভার নির্বাচন হতে চলেছে। আর এরমধ্যে কার্ভি ইনসাইটস এবং ইন্ডিয়া টুডে গ্রুপ মিলে একটি সমীক্ষা করিয়েছে। করোনার সঙ্কট, চীনের অনুপ্রবেশ, অর্থনীতিকে আবারও লাইনে আনার চিন্তার মধ্যেও এই সমীক্ষায় জানা গিয়েছে যে, দেশের মানুষ এখনো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথেই আছে। আজই যদি দেশে নির্বাচন হয়, তাহলে বিজেপিই আবার সরকার গড়বে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাজেই সন্তুষ্ট দেশের মানুষ। প্রায় ৭৪ শতাংশ মানুষই করোনা কালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেওয়া কাজে খুব সন্তুষ্ট। আর ১৭ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন, তাঁরা মোটামুটি সন্তুষ্ট। এর সাথে সাথে ৩৮ শতাংশ মানুষ এটাও বলছে যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই দেশের সর্বকালের সেরা প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পর অটল বিহারী বাজপেয়ী, ইন্দিরা গান্ধী আর জহরলাল নেহরু স্থান পেয়েছেন।

গত বছর করোনার সঙ্কটের সন্মুখিন হয়েছিল দেশ। এর সাথে সাথে লাদাখ সীমান্তে চীন লাগাতার ভারতকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে যাচ্ছিল। বিরোধীরা এই ইস্যু গুলোতে বারবার নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে এসেছে। এতকিছুর পরেও যখন মানুষের কাছে জিজ্ঞাসা করা হয় যে, এখন লোকসভা ভোট হলে কার সরকার হবে? তখন সমীক্ষায় উঠে আসে যে, আবারও NDA এ কেন্দ্রে সরকার গড়বে। এমনকি বিজেপি একার ক্ষমতাতেই সরকার গড়তে সক্ষম হবে। এখনই নির্বাচন হলে NDA ৩২১ টি আসন, UPA ৯৩ টি আসন আর অন্যান্যরা ১২৯ টি আসন পাবে।

মোদী সরকারের দ্বিতীয় কার্যকালের দ্বিতীয় বছর চলছে। আর দ্বিতীয় কার্যকালেও মোদী সরকার বড় বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মানুষের কাছে যখন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের পারফমেন্স নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। তখন সমীক্ষায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী মানুষের প্রথম পছন্দ হয়ে উঠে আসেন। প্রায় ৩৯ শতাংশ মানুষের কাছে মোদী সরকারের সেরা মন্ত্রী হলেন অমিত শাহ।

উল্লেখ্য, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কড়া সিদ্ধান্তের কারণে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়া হয়েছিল। এছাড়াও সিএএ-এর মতো সিদ্ধান্তও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনেই নেওয়ার হয়েছিল। অমিত শাহের পর রাজনাথ সিং দ্বিতীয় এবং নীতিন গডকড়ি তৃতীয় স্থানে আছেন।