Press "Enter" to skip to content

দেশ চালানোর টাকা নেই, অগত্যা অনুষ্ঠানের জন্য নিজের সরকারি বাসভবন ভাড়া দেবেন ইমরান খান


নয়া দিল্লীঃ পাকিস্তানের () ইমরান খান (Imran Khan) সরকার চরম আর্থিক সঙ্কটের সম্মুখীন। দেশের অবস্থা এতটা খারাপ যে, প্রধানমন্ত্রীর আধিকারিক আবাসকে ‘ভাড়া” দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। যদিও, এর আগেও পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী আবাসকে বিশ্ববিদ্যালয় করার ঘোষণা করা হয়েছিল। এবার নতুন ঘোষণা অনুযায়ী পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর আবাসকে উচ্চস্তরীয় রাজনৈতিক অনুষ্ঠান, সেমিনার এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া নেওয়া যেতে পারে।

সংবাদসংস্থা ANI অনুযায়ী, ের তরফ থেকে ২০১৯ সালেই ঘোষণা করা হয়েছিল যে, পাক প্রধানমন্ত্রীর আবাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বদলে যাচ্ছে। এরপর প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজের আধিকারিক আবাস খালি করে দেন।

রিপোর্ট অনুযায়ী, ‘এই কাজের জন্য দুটি সমিতির গঠন করা হয়েছে। এই সমিতিগুলি এটা দেখবে যে, প্রধানমন্ত্রীর আবাসে হওয়া অনুষ্ঠানের সময় যেন অনুশাসন আর মর্যাদার লঙ্ঘন না হয়।” স্থানীয় মিডিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী, এজেন্সি জানিয়েছে যে প্রধানমন্ত্রী আবাসের মাধ্যমে রাজস্ব জোটানোর জন্য একটি ক্যাবিনেট স্তরের বৈঠক হবে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী আবাসের অডিটরিয়াম, দুটি গেস্ট উইং আর একটি লন ভাড়ায় দেওয়া হবে।

এজেন্সির রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরই ইমরান খান ঘোষণা করেছিলেন যে সরকারের কাছে জনকল্যাণ যোজনার জন্য খরচ করার টাকা নেই।

পাকিস্তানের আর্থিক সমস্যার কথা এটা থেকেও বোঝা যায় যে, ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর গত তিন বছরে দেশের ১ হাজার ৯০০ কোটি ডলারে নেমেছে। দেশের আর্থিক অবস্থা শোধরানোর জন্য সরকারি খরচে অনেক কাটছাঁট করা হয়েছে। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল অভি করেছিলেন যে, ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন সরকার দেশের অর্থনীতি নিয়ে ছেলেখেলা করছে। তিনি এও বলেছিলেন যে, পূর্বের সরকারের তুলনায় অনেক বেশি টাকা ঋণ নিয়ে নিয়েছে।