Press "Enter" to skip to content

ধরনায় বসে ছবি আঁকলেন ‘প্রতিবাদী দিদি” সোশ্যাল মিডিয়ায় হল ভাইরাল



কলকাতাঃ সোমবার রাতে তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয় কমিশন। মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে ২৪ ঘণ্টা নিষেধাজ্ঞা জারি করে কমিশন। সোমবার রাত ৮টা থেকে মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত জারি থাকবে এই নিষেধাজ্ঞা। কমিশনের এই সিদ্ধান্তের পরই সরব হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই তিনি একটি টুইট করে মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসার ঘোষণা করেন।

মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে লেখেন, ‘নির্বাচন কমিশনের অগণতান্ত্রিক এবং অসাংবিধানিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগামীকাল দুপুর ১২টা থেকে আমি গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরণায় বসছি।” তৃণমূলের তরফ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়ে বলেছে, কমিশনের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক চাপে নিয়েছে। তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ এই বিশয়ে নির্বাচন কমিশনকে বিজেপির শাখা সংগঠন বলে কটাক্ষ করেছেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

আজ দুপুর ১১টা ৩৫ নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী গান্ধী মূর্তির পাদদেশের ধরনা মঞ্চে উপস্থিত হন। মুখে কালো মাস্ক আর গলায় গামছা নিয়ে ওনাকে ধরনায় বসে বসে ছবি আঁকতে দেখা যায়।

তবে শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেই না, এবার বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার বিরুদ্ধেও কড়া অ্যাকশন নিল নির্বাচন কমিশন। হাবরার বিজেপি প্রার্থী তথা বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়ে তাঁকে ৪৮ ঘণ্টা প্রচার করা থেকে বিরত রাখল নির্বাচন কমিশন। তিনি আগামী ৪৮ ঘণ্টা প্রচার সহ কোনও বিবৃতিও দিতে পারবেন না।

আরেকদিকে, বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও সতর্ক করেছে কমিশন। আরেকদিকে দিলীপ ঘোষকেও চিঠি পাঠিয়ে আগামীকাল সকালের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।