Press "Enter" to skip to content

ধর্মান্তরকরণের ব্যাবসা চালাতে এসেছিল খ্রিস্টান মিশনারির এক ব্যাক্তি! বৌদ্ধ ভিক্ষুক মারলো সপাটে চড়, ভাইরাল ভিডিও।


বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন মিশনারিরা ধর্ম করার যে উপদ্রব চালায় যা অন্য কোনো সংগঠন চালায় না। ংরেজরা আসার পর থেকে মানুষজনকে খ্রিস্টানে ধর্মান্তরিত করার ব্যাবসা শুরু হয়েছে। যা আজ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খন্ড ও উত্তরপূর্বের রাজ্যগুলি খ্রিস্টান মিশনারিদের উপদ্রবে বহু মানুষ খ্রিস্টান ধর্ম করে নিয়েছে। মানুষের দারিদ্রতার সুযোগ নিয়ে মিশনারিরা ভারতে ব্যাপক হারে ধর্মান্তরণ এর ব্যাবসা চালাচ্ছে। এই ক্রিস্টান মিশনারি সংক্রান্ত একটা ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে এক বৌদ্ধ ভিক্ষুক একজন খ্রিস্টান মিশনারির সাথে বার্তালাপ করার সময় সপাটে চড় মেরেছে। শ্রীলঙ্কার পূর্ব অঞ্চলের বাটিকোলোয়ায় মিশনারিদের দ্বারা ধর্ম পরিবর্তন করা এক ব্যাক্তি একজন বৌদ্ধ ভিক্ষুর চোখে পড়ে। ক্রিস্টান মিশনারির ব্যাক্তিটি মূলত নিজের প্রোপাগান্ডা চালানোর বেরিয়েছিল। মিশনারি ব্যাক্তির সাথে বৌদ্ধ ভিক্ষুকের কথোপকথনের হতেই বৌদ্ধ ভিক্ষুক তাকে সপাটে চড় মারে।

ঘটনাটি শ্রীলঙ্কার বাটিকোলোয়ায় ঘটিত হয়েছে। বৌদ্ধ ভিক্ষুক সুমনরত্ন থেরো ওই খ্রিস্টান মিশনারিকে সপাটে চড় মারেন। ভিক্ষুক সুমনরত্ন থেরো খ্রিস্টান মিশনারির ওই ব্যাক্তিকে এতটা জোরে চড় মারেন যে তার চশমা খুলে যায়। একইসাথে ব্যাক্তিটি কিছুদূর পিছিয়ে যায়। ওই ঘটনার সময় ওই স্থানে অন্যান্য বৌদ্ধ ভিক্ষুকরাও উপস্থিত ছিলেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

ক্রিস্টিয়ান মিশনারীকে শিক্ষা দেওয়ার পর বৌদ্ধ ভিক্ষুক এক পুলিশ অফিসারেরও ক্লাস নেন। ঘটনাটি নিয়ে বিশ্বজুড়ে বিতর্ক হলেও শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পদক্ষেপ বেশ প্রশংসিত হয়েছে। তথাকথিত লিবারেলরা বলেছেন বৌদ্ধ ভিক্ষুক নিজের হাতে আইন তুলে নিয়ে ভুল করেছেন। অন্যদিকে সাধারণ মানুষ বলেছেন এমন প্রতিবাদের আরো প্রয়োজন রয়েছে।