Press "Enter" to skip to content

ধর্ম পরিবর্তন করা মৌলানাদের গ্রেফতার করা অনৈতিক ও অসাংবিধানিক বললেন কেজরীবালের বিধায়ক

নয়া উত্তর প্রদেশ ধর্ম পরিবর্তন করোনা দুই মৌলানাকে গ্রেফতার করেছে। তাঁদের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত তাঁদের বিরুদ্ধে এক হাজারের বেশি গরিব হিন্দুদের প্রলোভন দেখিয়ে ইসলামে ধর্মান্তকরণ করার অভিযোগ উঠেছে। এই মামলায় গ্রেফতারির পর নড়েচড়ে বসেছে যোগী সরকার এবং প্রশাসন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দুই মৌলবির করে তাঁদের বিরুদ্ধে দেশদ্রহ’র মামলা দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি এই মামলায় বাকি অভিযুক্তদের শীঘ্রই গ্রেফতার করে শাস্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

এই মামলায় এখন রাজনীতিও শুরু হয়ে গিয়েছে। দিল্লীর আম আদমি পার্টির বিধায়ক অমনতুল্লাহ খান (Amanatullah Khan) দুই মৌলানাকে অবিলম্বে মুক্ত করার দাবি জানিয়ে বিজেপিকে নিশানা করেছেন। আরেকদিকে, বিজেপি সাংসদ প্রবেশ বর্মা (Pravesh Verma) অমনতুল্লাহ খানকে এই বিষয়ে কটাক্ষ করেছেন।

অমনতুল্লাহ খান বলেছেন, ‘ উমর গৌতম আর মুফতি জাহাঙ্গীরের গ্রেফতারি অসাংবিধানিক। বিজেপি উত্তর প্রদেশের নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে হিন্দু-মুসলিমদের নিয়ে রাজনীতি করা শুরু করে দিয়েছে। বিজেপির এই কাজ কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।” অমনতুল্লাহ খান আরও একটি টুইটে লেখেন, ‘উত্তর প্রদেশে আগামী নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে বিজেপি অসাংবিধানিক ভাবে নিজেদের ডুবন্ত নৌকা পার করানো চেষ্টা করছে।”

এই প্রসঙ্গে বিজেপির সাংসদ প্রবেশ বর্মা বলেন, ‘কাল দুজনকে গ্রেফতার করা হয়ে, তদন্ত করছে এর সঙ্গে কে কে যুক্ত আছে। হতে পারে আম আদমি পার্টির বিধায়কের থেকেও ওঁরা সাহায্য পায়। এদের মধ্যে জিহাদিদের প্রথা চলে আসছে। আম আদমি পার্টি আর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবালকে জবাব দেওয়া উচিৎ যে, তাঁরা এই বিষয়ে কী ভাবছে, তাঁরা কী নিজের বিধায়কের সঙ্গ েন, না সত্যের?”