Press "Enter" to skip to content

নিজামুদ্দিনে ইসলামিক জলসায় অংশ নেওয়া ৬ ব্যাক্তির মৃত্যু! ধর্ম পালনের নামে গোটা ভারতে ছড়িয়ে দিলো করোনা!

নয়া দিল্লীঃ তেলেঙ্গানায় ছয়জনের ে () সংক্রমণের কারণে মৃত্যু হয়েছে। এরা সবাই দিল্লীর ে () ১৩ই মার্চ থেকে ১৫ই মার্চের মধ্যে ের () ধার্মিক সভায় অংশ নিয়েছিল। এক আধিকারিকের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, ‘দিল্লীর নিজামুদ্দিন এলাকারা মরকঞ্জে ১৩ মার্চ থেকে ১৫ই মার্চ এক ধার্মিক সভায় অংশ নেওয়ায় কিছু মানুষের মধ্যে এর সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। ওই সভায় অংশ নেওয়ার জন্য তেলেঙ্গানা থেকে অনেকে এসেছিল।”

উল্লেখ্য, তেলেঙ্গানা সরকারের তরফ থেকে জারি করা একটি বয়ানে বলা হয়েছে যে, যেই ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে দুজনের মৃত্যু গান্ধী হাসপাতালে আর দুজনের মৃত্যু বেসরকারি হাসপাতালে হয়েছে। আর বাকি দুজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু নিজামাবাদ আর দ্বিতীয় জনের মৃত্যু গডবাল শহরে হয়েছে।

আপনাদের জানিয়ে দিই, দিল্লীর নিজামুদ্দিন এলাকায়া কিছুদিন আগে নিষেধাজ্ঞা জারি থাকার পরেও ধার্মিক জলসা চলছিল। ওই অনুষ্ঠানে প্রায় ১৪০০ মানুষ উপস্থিত ছিলেন। সোমবার রাতে তাঁদের মধ্যে ৩৪ জনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। এরপর তাঁদের দিল্লীরেক সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়, সেখানে একজন বয়স্ক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এবার নিজামুদ্দিনে জমায়েত করা সমস্ত ১৪০০ লোককে করোনার পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল ইসলামিক সংগঠন তাবলীগ জামাতের বিরুদ্ধে FIR দায়ের করার আদেশ দিয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে লকডাউনের সময় ভিড় জমিয়ে ধার্মিক অনুষ্ঠান করার অভিযোগ উঠেছে।

এই অনুষ্ঠান সুন্নী ইসলামিক সম্বন্ধিত সংস্থা তাবলীগ জামাত গোটা বছর ধরেই চালায়। এই অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য ১৪০০ জন নিজামুদ্দিনের তাবলীগ জামাতের সেন্টারে এসেছিলেন। এদের মধ্যে ১০০ বিদেশী ছাড়া, দেশের আলাদা আলাদা রাজ্য থেকে মানুষ এসে উপস্থিত হয়েছিল।

এবার এই মামলার তদন্ত বিশ্ব স্বাস্থ সংগঠন, দিল্লী সরকারের স্বাস্থ বিভাগ আর দিল্লী পুলিশ মিলে করছে। এই ঘটনার পর এখনো পর্যন্ত ৩০০ জনকে সেখান থেকে বের করে আলাদা আলাদা স্থানে রাখা হয়েছে।