Press "Enter" to skip to content

নির্দেশ ছিল ঘরে ঢুকে মারার! বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের এক বছর পূর্ণ হওয়ায় বললেন প্রাক্তন বায়ুসেনা প্রধান

() আজ থেকে ঠিক এক বছর আগে করা হয়েছিল। এয়ার স্ট্রাইকের এক বছর পূর্ণ হওয়ার পর প্রাক্তন বায়ুসেনা প্রধান () বলেন, এক বছর পূর্ণ হয়েছে আর আমরা সন্তুষ্টির সাথে পিছনে ফিরে দেখছি। আমরা অনেক কিছু শিখেছি, বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের পর অনেক কিছু জিনিষ লাগু ক্রয়া হয়েছে। উনি বলেন, আমরা এটাই বোঝাতে চাইছিলাম যে, তোমরা যেখানেই থাক না কেন, আমরা ঘরে ঢুকে মারব। এছাড়াও আমরা ওদের উপর নিজের এলাকায় বসেও হামলা করতে পারতাম।

বিএস ধানোয়া বলেন, মূল রুপে এটা আমদের অপারেশন করার পদ্ধতিতে বদল ছিল। শত্রু পক্ষ কখনোই স্বীকার করেনি যে, আমরা তাঁদের সীমা অতিক্রান্ত করে সক্রিয় জঙ্গি শিবির গুলোকে উড়িয়ে দিতে পারি। কিন্তু আমরা এটা করে দিই। উনি বলেন, বালাকোট হাওয়াই হামলার পর আর বড়সড় জঙ্গি হামলা করতে পারেনি ওঁরা, কারণ এবার ওদের মনে এই ভয় ছিল যে, আমরা এবার আগের মতো করেই বিনাশকারী হামলা চালাব।

কি হয়েছিল বালাকোটে?  ভারত, পাকিস্তান আশ্রিত জঙ্গি দ্বারা জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায়া করা হামলার বদলা নেওয়ার জন্য ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এ সকাল ৩ঃ৩০ নাগাদ পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে হামলা করে। ভারতীয় সেনা বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করে জঙ্গি শিবির গুলোকে ধ্বংস করে দেয়। রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতের এই হামলার কারণে পাকিস্তানের অনেক জঙ্গি মারা যায়।

মিরাজ ২০০ বিমান নিয়ে ভারতীয় বায়ুসেনার একটি দল ভোর রাতে লাইন অফ কন্ট্রোল পার করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি আস্তানা গুলোতে বোমা নিক্ষেপ করে সেগুলোকে সম্পূর্ণ ভাবে ধ্বংস করে দেয়। পাকিস্তানের সীমান্তে ভারতীয় বায়ুসেনা ১০০০ কেজির বোমা নিক্ষেপ করে এই ধ্বংসলীলা চালায়।