Press "Enter" to skip to content

নেহরুর আমলে ভারতের দখল করা এলাকায় গ্রাম তৈরি করছে চীন, রিপোর্টে চাপে রাহুলরা

নয়া ঃ সম্প্রতি মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ পেন্টাগনের (Pentagon) একটি রিপোর্টে অরুণাচল প্রদেশে (Arunachal Pradesh) চীন (China) দ্বারা গ্রাম তৈরি করার দাবি ঘিরে শোরগোল পড়ে যায়। পেন্টাগনের সে রিপোর্টের পর ভারতীয় প্রতিরক্ষা সংস্থার বয়ান সামনে এসেছে। সংবাদসংস্থা PTI অনুযায়ী, নিরাপত্তা সংস্থার সূত্র বলছে, অরুণাচল সেক্টরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (LAC) কাছে পেন্টাগনের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা চীনা-নির্মিত গ্রামটি চীনের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

সূত্রের দাবি অনুযায়ী, ওই গ্রামের নির্মাণ চীন সেই এলাকায় করেছে, যেখানে ১৯৫৯ সালে চীনের সেনা অবৈধ ভাবে অনুপ্রবেশ করে কবজা করে নিয়েছিল। উল্লেখ্য, ১৯৫৯ সালে চীনের সেনা অরুণাচল প্রদেশের সীমান্তবর্তী একটি অভিযান চালিয়ে অসম রাইফেলসের পোস্ট দখল করে নিয়েছিল।

চীনা সেনার এই অনুপ্রবেশ লংজু ঘটনা নামে খ্যাত। ১৯৫৯ সালে দখল করা সেই জমিতে চীন গ্রাম বসানোর কাজ করছে। সংবাদসংস্থার মতে আপার সুবানসিরি জেলায় বিতর্কিত সীমান্তের পাশে থাকা গ্রাম চীনের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকার মধ্যে পড়ে।

সূত্রের দাবি, তাঁরা ১৯৫৯ সালের পর থেকেই ওই এলাকায় সেনা পোস্ট বানিয়ে রেখেছে। আর সেখানে গ্রাম তৈরি করার কাজও আচমকাই শুরু হয়নি। চীন দীর্ঘদিন ধরেই সেখানে গ্রাম তৈরি করার কাজে জুটেছে। তবে পেন্টাগনের সাম্প্রতিক রিপোর্টে এই কথা উঠে আসতেই ভারতীয় রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে যায়।

সরকার বিরোধী সব দলই কেন্দ্রকে তাঁদের নীতি নিয়ে দোষারোপ করা শুরু করে। আর এই রাজনৈতিক ডামাডোলের মধ্যে নিরাপত্তা সংস্থার সূত্র চীনের তৈরি করা গ্রাম নিয়ে নিজেদের রিপোর্ট পেশ করেছে। এই রিপোর্ট আসার পর পাল্টা কংগ্রেসই চাপে পড়েছে। কারণ, এতদিন ধরে মোদী সরকার বারবার বলে এসেছে যে, তাঁদের আমলে ের এক ছটাকও যায়গা দখল করতে পারেনি। যা করেছে সব কংগ্রেস আমলেই।