Press "Enter" to skip to content

পশ্চিমবঙ্গে ২০০ টি আসন জিতবো ও ৫০ লক্ষ অনুপ্রবেশকারীকে বের করবো: দিলীপ ঘোষ


এবং NRC নিয়ে দেশব্যাপী কোন্দলের মাঝে ভারতীয় জনতা পার্টির (BJP) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) বসবাসকারী অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে একটি বড় বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে “৫০ লক্ষ মুসলিম অনুপ্রবেশকারীকে চিহ্নিত করা হবে এবং তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া হবে।” দিলীপ ঘোষ এক অনুষ্ঠানে ভাষণ দেওয়ার সময় এ কথা বলেন। এ সময় বক্তব্যে তিনি বলেছিলেন, ‘প্রথমে অনুপ্রবেশকারীদের নাম ভোটার তালিকা থেকে সরানো হবে। তাহলে দিদি (সিএম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) কাউকে তোষণ করতে পারবেন না। এটি হয়ে গেলে, দিদির ভোট কমে যাবে এবং আমরা আগামী নির্বাচনে 200 আসন পাব, তিনি 50 টি আসনও পাবেন না।

Dilip Ghosh

জানিয়ে দি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় দিলীপ ঘোষের সভা আয়োজিত হয়েছিল। সে সভাতেই দিলীপ ঘোষ এই মন্তব্য করেন। এর আগে, ঘোষ, 12 জানুয়ারী, বাংলার নদীয়া জেলার রানাঘাটে আয়োজিত সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার সময় বলেছিলেন যে বিজেপি শাসিত রাজ্য উত্তরপ্রদেশ, আসাম ও কর্ণাটকে জনসাধারণের সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্থ করা লোকদের গুলি করা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন যে রাজ্যে এক কোটি অনুপ্রবেশকারী রয়েছে।

ডিসেম্বর মাসে দিলীপ ঘোষ ৫০০ কোটি টাকার ি সম্পত্তি নষ্ট করার অভিযোগ তুলেছিলেন। দিলীপ ঘশ্বেই সম্পত্তি নষ্ট করার অভিযোগ কট্টরপন্থীদের উপর এনেছিল। দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন ট্যাক্সের টাকায় এই সমস্থ সম্পত্তি গড়ে উঠেছে। কিন্তু রাজ্য সরকার এদের কিভাবে সম্পত্তি নষ্ট করতে দিল?

 

আর এখন দিলীপ ঘোষ পশ্চিমবঙ্গ থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের বের করার হুমকি দিয়েছেন। ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন, সেই পরিস্থিতিতে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ যে বেশ সক্রিয় হয়েছেন তা ভালোই বোঝা যাচ্ছে। মাত্র কয়েকদিন আগে দিলীপ ঘোষ পশ্চিমবঙ্গে রাজ্য সভাপতি হিসেবে পুনঃ নির্বাচিত হয়েছে। রাজ্যে যখন একের পর এক বিজেপি কর্মী খুন হচ্ছিল সেই পরিস্থিতি দিলীপ ঘোষ কর্মীদের মনবল বাড়িয়ে রেখেছিলেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হয়েছে। বলা হচ্ছে কারণেই দিলীপ ঘোষকে পুনরায় রাজ্য সভাপতি নিযুক্ত করা হয়েছে। পুনঃ নির্বাচিত হওয়ার পর দিলীপ ঘোষ যে রূপ ধারণা করছেন যা তৃণমূলকে বিপদে ফেলতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।