Press "Enter" to skip to content

পাঞ্জাব কাণ্ড নিয়ে বড় বয়ান দিলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত, জিতে নিলেন ভারতের মন

[ad_1]

মুম্বইঃ বুধবার পাঞ্জাব সফরে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানে তাঁর নিরাপত্তায় বিশাল ত্রুটি ধরা পড়েছিল। বিক্ষোভকারীদের কারণে নরেন্দ্র মোদীর কনভয় একটি ফ্লাইওভারে ১৫ থেকে ২০ মিনিটের জন্য থমকে গিয়েছিল। কেন্দ্রীয় সরকার এই ত্রুটির জন্য পাঞ্জাবের ক্ষমতাসীন কংগ্রেস সরকারকে দায়ী করেছে। অন্যদিকে, সোশ্যাল মিডিয়ায় কংগ্রেস সরকারের ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে। আর এবার এই ইস্যুতে ঝাঁপিয়ে পড়লেন কঙ্গনা রানাওয়াতও। তিনি পাঞ্জাবকে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কেন্দ্রস্থল হিসাবে বর্ণনা করেছেন।

কঙ্গনা তাঁর ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘পাঞ্জাবে যা হয়েছে তা লজ্জাজনক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত নেতা প্রতিনিধি এবং ১৪০ কোটি মানুষের প্রতিনিধি কণ্ঠস্বর। তাঁর ওপর এ ধরনের হামলা মানে দেশের প্রতিটি নাগরিকের ওপর হামলা। এটা আমাদের গণতন্ত্রের ওপরও আক্রমণ।”

কঙ্গনা আরও লিখেছেন, ‘পাঞ্জাব সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠছে। এখনই না থামালে দেশকে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে।” এর সঙ্গেই কঙ্গনা হ্যাশট্যাগ দিয়ে লিখেছেন – ‘Bharat Stand With Modi Ji..” কঙ্গনার এই বক্তব্যের প্রশংসাও হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কঙ্গনাকে প্রায়ই বিজেপি সমর্থক বলে কটূক্তি করতে দেখা যায়, তবে অভিনেত্রী অবশ্যই সোশ্যাল মিডিয়াতে তাঁর নিজস্ব মতামত রাখেন।

বলে দিই, ১৩ মাস দীর্ঘ কৃষক আন্দোলনের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথমবারের মতো পাঞ্জাব সফর গিয়েছিলেন। তিনি ফিরোজপুরে যেতেন, যেখানে ৪২,৭৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন পরিকল্পনার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হত। বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উড়োজাহাজটি ভাটিন্ডার এয়ারফোর্স স্টেশনে পৌঁছয়।

সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে ওনার হুসাইনিওয়ালা যাওয়ার কথা থাকলেও কুয়াশা ও বৃষ্টির কারণে প্রধানমন্ত্রী সেখানে আটকা পড়েন। আবহাওয়া পরিষ্কার না হলে প্রধানমন্ত্রীর কনভয়কে সড়কপথে হুসাইনিওয়ালায় নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপরই মাঝ সড়কে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় বড়সড় ত্রুটি ধরা পড়ে। যার কারণে ওনাকে সেখানেই সফর রদ করতে হয়।

[ad_2]