Press "Enter" to skip to content

পিছন থেকে আঘাত! অন্ধকারে পঞ্জশিরে ড্রোন হামলা করে তালিবানকে সুযোগ করে দেয় পাকিস্তান


আফগানিস্তানের পঞ্জশিরে মাসুদ আহমেদের প্রতিরোধ বাহিনী আর তালিবানদের মধ্যে যুদ্ধ চলছে, যা প্রায় শেষের দিকে। কারণ পঞ্জশিরের গভর্নর হাউসে নিজেদের পতাকা তুলেছে। এর মানে এই যে, পঞ্জশির তালিবানের দখলে চলে গিয়েছে। রবিবার মাসুদ বাহিনীর টপ কম্যান্ডারকেও মেরে ফেলার দাবি করেছে তালিবান। আফগানিস্তানের নয়া শাসকের এই দাবির পাল্টা কোনও দাবি করেনি মাসুদ বাহিনী।

তবে তালিবান এমনি এমনিই পঞ্জশিরে দখল জমাতে সক্ষম হয়নি। শোনা যাচ্ছে যে, রাতের অন্ধকারে ের তরফ থেকে পঞ্জশিরে ড্রোন হামলা করা হয়েছিল। আর সেই ড্রোন হামলাতে পঞ্জশিরের মুখপাত্র ফহিম দশতি প্রাণ হারান। ফহিম, আহমেদ মাসুদের ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত ছিলেন। পাকিস্তানের এই ড্রোন হামলাতেই মাসুদ পরিবারের সদস্য তথা প্রতিরোধ বাহিনীর কম্যান্ডারও প্রাণ হারান। গুল হায়দার খান, মুনীব আমিরি আর বুদাদও পাকিস্তানের এই ড্রোন হামলায় প্রাণ হারান।

রিপোর্টে দাবি করা হচ্ছে যে, আফগানিস্তানের কার্যবাহ অমরুল্লাহ সালেহর বাড়িতেও হেলিকপ্টার করে হামলা হয়েছে। যদিও, সেই সময় সালেহ সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। সালেহকে আগেভাগেই সুরক্ষিত জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে।

সালেহ এর আগেই একটি ব্রিটিশ মিডিয়াকে দেওয়া বয়ানে বলেছিলেন যে, তালিবানকে আর কেউ না পাকিস্তান নিয়ন্ত্রণ করছে। সালেহ বলেছিলেন, তালিবান পাকিস্তানের হাতের পুতুল মাত্র। কিন্তু এসব বেশীদিন চলবে না। সালেহ জানিয়েছিলেন, ওঁরা এখন ক্ষমতায় আছে ঠিকই, কিন্তু আমাদের অতীত সাক্ষী রয়েছে যে, আমাদের মাটিতে কবজা করলেই আমাদের লোকেদের মন জয় করা যায় না। পতন অবশ্যই হবে।