Press "Enter" to skip to content

‘পিস্তলের মুখে ভোট হয় বাংলায়” নিজের দলেরই মুখোশ খুলে দিলেন তৃণমূল বিধায়ক


কলকাতাঃ বেশ কিছুদিন ধরেই বারবার বিতর্কে উঠে আসছেন হুগলির বলাগড়ের বিধায়ক মনোরঞ্জন ব্যাপারী। কখনও দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ। আবার কখনও লোককে মদ-মাংস খাওয়াই বলে সবার নজর কাড়ছেন তিনি। আর ওনার বারবার এমন ে অস্বস্তিতে পড়ছে গোটা দল। আর আরও একবার দলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন তিনি।

এদিন ফেসবুকে একটি পোস্ট করে মনোরঞ্জনবাবু লেখেন, ‘ প্রিয় বলাগড়বাসি বন্ধুরা , আজ আপনাদের পরিষেবা ার জন্য আমার গুপ্তিপাড়া বিধায়ক কার্যালয়ে উপস্থিত থাকার কথা ছিল । কিন্ত আমি কলকাতা চলে আসতে বাধ্য হবার জন্য গুপ্তিপাড়ায় উপস্থিত থাকতে পারছি না । আমি কেন আচমকা কলকাতা এলাম এটা আপনাদের নিশ্চয় বলে দিতে হবে না । কয়েক দিন ধরে বলাগড় অঞ্চলে যা যা ঘটছে সব আপনারা জানেন। এর একটা নিরাকরন , বিহিত করা দরকার। আপনাদের পরিষেবা ব্যাহত হবার জন্য ওই ঘটনা , যারা ওইসব ঘটনাকে পরিকল্পিত ভাবে সংঘটিত করে চলেছে তারাই মূলতঃ দায়ী।”

বিধায়ক আরও লেখেন, ‘এই যে আপনারা ‘দুয়ারে বিধায়ক’ পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হলেন এর জন্য আমার প্রতি নয়, আপনার রাগ তাদের প্রতি হওয়া বাঞ্ছনীয় । আপনারা যাকে এত কষ্ট করে ভোটে জেতালেন , দিদি মমতা ব্যানার্জী, আর তৃণমূল দলের বিধায়ক- যাকে চার পাচজন দূস্কৃতি অনবরত নোংরা ভাষায় অপমান কুৎসা করে চলেছে- চোর বলছে ধর্ষক বলছে, এটা শুধু দলের নয়, দিদি মমতা ব্যানার্জীর নয় , গোটা বলাগড়বাসির অপমান ।”

বিধায়ক লেখেন, ‘যারা বন্দুক রিভালবার দেখিয়ে ভোটে জেতে তাদের জনগনের প্রতি কোন দায়বদ্ধতা থাকে না । তাঁরা মনে করে ওইভাবে বার বার জিতে যাবে। আমি তেমন ভাবে জিতি নি , জিততে চাই না। আমি জিতেছি মা মাটি মানুষের নেত্রী দিদি মমতা ব্যানার্জীর আশীর্বাদ আর আপনাদের ভালোায়। আমি আপনাদের প্রতি দায়বদ্ধ কৃতজ্ঞ আভুমি প্রনত।”

এখন কথা হল, বন্দুক দেখিয়ে কারা ভোট নেন বলতে চেয়েছেন মনোরঞ্জনবাবু? একটি সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎ অনুযায়ী, বিধায়ক বলেছেন, ‘গত পঞ্চায়েত ভোটের ইতিহাসটা ঘেঁটে দেখুন। কারা কী করেছে সব জানতে পারবেন।” ওনার এই বক্তব্যে এটা স্পষ্ট যে, তিনি বন্দুক দেখিয়ে ভোটে জেতার বিষয়ে নিজের দল তৃণমূলকেই ইঙ্গিত করেছেন।