Press "Enter" to skip to content

পুরোনো গৌরব ফিরে পেতে চলছে ফিরোজাবাদ, মুঘল শাসকের নাম বদলে হবে চন্দ্রনগর

লখনউঃের নিজের কার্যকালে অনেক বড়বড় শহর আর স্টেশনের নাম বদলে ফেলেছে। আর এবার আরও একটি শহরের নাম বদলানোর চর্চা চলছে। কাঁচের চুড়ির জন্য বিখ্যাত ফিরোজাবাদ জেলার নাম বদলানোর দাবি বহুদিন ধরে উঠছিল। আর এরই মধ্যে জেলা পঞ্চায়েত নাম বদলানোর প্রস্তাবও পাশ করে দিয়েছে। ব্লক প্রধান ডঃ লক্ষ্মী নারায়ণ যাদবের নেতৃত্বে ফিরোজাবাদের নাম পাল্টে চন্দ্রনগর রাখার দাবি উঠেছে।

ফিরোজাবাদের বিষয়ে শহরের ইতিহাস সম্পর্কে জানা অনুপ চন্দ বলেন, এই শহরের প্রাচীন নাম ছিল চন্দ্রবাড়। ১৫৫৬ সালে ের শাসন কালে ফিরোজশাহ দ্বারা এই শহরের নাম বদলে ফিরোজাবাদ রাখা হয়। জানা যায় যে, আকবরের আমলার অর্থমন্ত্রী টোডরমল ফিরজাবাদে এসেছিলেন তীর্থ যাত্রার জন্য। ওনার আবেদনে আকবর সেখানে ফিরোজশাহকে পাঠিয়েছিলেন। এরপর ফিরোজশাহ সেই শহরের নাম পাল্টে ফিরোজাবাদ করে দেয়। সেখানে ফিরোজশাহের সমাধিও রয়েছে।

এই বিষয়ে ফিরজাবাদ সদরের বিধায়ক মনিষ আসীজা বলেন, রাজা চন্দ্র সেন চন্দ্রবাড় গড়ে তুলেছিলেন। সেখানে বহু জৈন মন্দিরও বানিয়েছিলেন তিনি। তবে শাসকরা আক্রমণ করে সেইসব মন্দির ভেঙে ফেলে। তিনি জানান, এরপরই মুঘল শাসকরা এর নাম বদলে ফিরোজাবাদ রাখে। এখানকার বেশীরভাগ মানুষই এই নাম বদলাতে চাইছে এখন।

নব নির্বাচিত জেলা পঞ্চায়েত সভাপতি হর্ষিতা সিং বলেন জেলা পঞ্চায়েত সদস্য আর জনপ্রতিনিধিরা দীর্ঘদিন ধরেই দাবি তুলছে যে, ফিরজাবাদ শহরের পুরনো নাম ফিরিয়ে দেওয়া হোক। তাঁরা চাইছে শহরের নাম হয় চন্দ্রনগর হোক বা চন্দ্রবাড়।