Press "Enter" to skip to content

প্রথম বছরেই ধাক্কা, যোগীরাজ্য আর গুজরাতে পালিত হল না তৃণমূলের খেলা হবে দিবস


কলকাতাঃ আজ জুড়ে করে ি শাসিত রাজ্যগুলিকে পাখির চোখ করে খেলা হবে দিবস পালন করছে তৃণমূল। বাংলার জায়গায় জায়গায় ইতিমধ্যে শাসক দলের পক্ষ থেকে কর্মসূচি শুরু হয়ে গিয়েছে। এমনকি সকাল সকাল ত্রিপুরাতেও তৃণমূল সাংসদের বল পায়ে মাঠে নামতে দেখা গিয়েছে। কিন্তু তৃণমূলের কাছে খারাপ খবর হল প্রথমবার পালিত হওয়া খেলা হবে দিবস গুজরাত আর উত্তর প্রদেশে অনুমতি পেল না।

বাংলা সহ অসম, ত্রিপুরা, গুজরাত ও উত্তরপ্রদেশে খেলা হবে দিবস পালন করার ঘোষণা করেছিল তৃণমূল। যোগই রাজ্যের আর গুজরাতের গোধরায় আজ খেলা হবে দিবস পালন হওয়ার কথা ছিল। জাতীয় স্তরের কয়েকজন ফুটবলারকে ময়দানে নামানোর তোরজোড়ও শুরু করেছিল শাসক দল। কিন্তু গুজরাত ও যোগীরাজ্যে তৃণমূলের খেলা হবে দিবস পালন করার অনুমতি মেলেনি।

গোধরার যেই স্কুলের মাঠে খেলা হবে দিবস পালন করার কথা ছিল, সেই মাঠে অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ তৃণমূলের। অন্যদিকে, যোগীরাজ্যে লখনউ-এর একটি মাঠে খেলা হবে দিবস পালন করার কথা ছিল। উত্তরপ্রদেশের তৃণমূল নেতা নীরজ রাই জানিয়েছেন, শুধু খেলা হবে দিবসই না, এর আগেও বহু অনুষ্ঠানের অনুমতি দেয়নি যোগী । আমরা পেট্রল-ডিজেলের মূলয়বৃদ্ধির বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছিলাম, তখনও আমাদের আটকে দেওয়া হয়েছিল।

নীরজ রাই বলেন, মোদী-যোগী দুজনেই মুখে স্বামী বিবেকানন্দর কথা বলেন, আর আমরা যখন দেশের যুব সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ফুটবল খেলার আয়োজন করেছি, তখন আমাদের আয়োজন চক্রান্ত করে বন্ধ করে দেওয়া হল। এই ঘটনায় প্রমাণ করে যে, বিজেপি আর আরএসএস শুধু মুখেই হিন্দুত্বের কথা বলে, ওরা হিন্দুত্বে বিশ্বাসী নয়।