Press "Enter" to skip to content

ফরেন্সিক আর পোস্ট মর্টেম রিপোর্টে ধর্ষণের উল্লেখ নেই, ইচ্ছে করে জাতপাতের উত্তেজনা ছড়ানো হচ্ছে! বললেন ADG

লখনউঃ ের () ে () হওয়া গণধর্ষণ মামলায় আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ফরেনসিক রিপোর্টেও ধর্ষণের কথা উল্লেখ নেই। পাঁচ বৈজ্ঞানিকের টিম তদন্তের পর নিজেদের রিপোর্ট পেশ করেছেন। আরেকদিকে, রাজ্যের ADG আইন শৃঙ্খলা প্রশান্ত কুমার জানিয়েছেন, পোস্টমর্টেম রিপোর্টে পরিস্কার জানা গিয়েছে যে, নির্যাতিতার মৃত্যু গলায় আঘাত লাগার দরুণ হয়েছে। ফরেন্সিক তদন্তেও স্পার্ম পাওয়া যায়নি। এর থেকে এটা পরিস্কার যে, কেউ ইচ্ছে করে ঘটনায় টুইস্ট এনে জাতপাত নিয়ে উত্তেজনা ছড়ানোর কাজ করেছে। তাঁদের চিহ্নিত করে তাঁদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়া হবে।

আরেকদিকে, যুবতীর পোস্টমর্টেম রিপোর্ট দুপুরেই প্রকাশ্যে এসেছে। সফদরগঞ্জ হাসপাতালের এই রিপোর্টে ধর্ষণের কথার উল্লেখ নেই। রিপোর্ট অনুযায়ী, ধর্ষিতার ঘাড়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। এছাড়াও ধর্ষিতার মেরুদণ্ডের হাড় ভাঙা ছিল বলে জানা গিয়েছে। নির্যাতিতার ব্লাড ইনফেকশন আর হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল। রিপোর্ট অনুযায়ী, মৃত্যু ২৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ টা বেজে ৫৫ মিনিটে হয়েছে। এই ঘটনায় ফরেনসিক রিপোর্ট আজ বিকেলের মধ্যে আসতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

  • রিপোর্টে ধর্ষণের কথার উল্লেখ নেই
  • নির্যাতিতার মেরুদণ্ডের হাড় ভাঙা ছিল বলে জানা গিয়েছে।
  • নির্যাতিতার ঘাড়েও আঘাত লেগেছে।
  • নির্যাতিতার হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল।
  • এছাড়াও তাঁর ব্লাড ইনফেকশন হয়েছিল।
  • ২৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ঃ৫৫ মিনিটে নির্যাতিতার মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য, ১৪ সেপ্টেম্বর উত্তর প্রদশের হাথরসের একটি গ্রামে ১৯ বছর বয়সী এক যুবতীকে ধর্ষণ করে নৃশংস অত্যাচার চালানো হয়। প্রথমে তাকে আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের জওহরলাল নেহরু মেডিক্যাল কলেজে ভরতি করানো হয়েছিল। এরপর সোমবার তাকে দিল্লির সফদরগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মঙ্গলবার ধর্ষিতা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে।