Press "Enter" to skip to content

ফ্রান্সে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাগরিকদের প্রবেশের উপর লাগানো হোক ব্যান! দাবি তুললেন বিরোধী দলের নেত্রী


ফ্রান্সে লাগাতার সন্ত্রাসবাদীদের উপদ্রবে ইসলামিক আতঙ্কবাদীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি উঠছে। ফ্রান্সে এক শিক্ষকের গলা কেটে হত্যার পর চার্চে ঢুকে ৩ জনের হত্যার ঘটনা জনগনকে আরো আক্রোশিত করে তুলেছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যে ফ্রান্সের বিরোধী দলের নেতা মেরিন লে পেন নিয়ে বড়ো দাবি তুলেছেন। যা ের সমস্যা বাড়াতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

পেন দাবি করেছেন, যারা পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে এসে ফ্রান্সে বসতি গড়ে তাদের উপর ব্যান লাগানো হোক। আসলে ফ্রান্সের উপর আক্রোশ প্রকাশ করে বাংলাদেশে ও পাকিস্তানে ব্যাপক বিরোধ প্রদর্শন চলছে। দেশের উপর এমন আক্রোশ প্ৰকাশ দেখে পেন এমন মন্তব্য করেছেন। লক্ষণীয় বিষয় যে, ভারতেও কিছু কিছু স্থানে (ভোপাল, মুম্বাই) ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন হয়েছে। তবে ভারতের রাষ্ট্রবাদী জনতা এবং একই সাথে ভারতের সরকার ফ্রান্সের পাশে থাকার ঘোষণা করেছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

ফ্রান্সের বিরোধী দলের নেত্রী টুইট করে লিখছেন, “আজ বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে হওয়া হিংসক বিক্ষোভ দেখার পর আমি সরকারের কাছে দাবি করছি যে ওই দুই দেশ থেকে আগত লোকজনকে রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার নামে ব্যান করা হোক।” এর আগে উনি টুইট করে ভারতকে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন। ভারত সরকার ফ্রান্সের সমর্থনে রয়েছে এর উপর ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন মেরিন লে পেন।প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বেশকিছু ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে যেখনে মুসলিমরা হাজার হাজার সংখ্যায় জড়ো হয়ে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

পাকিস্তান থেকে এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যেখানে মাদ্রসায় কোরান পড়ানোর পর ছাত্রদের শেখানো হচ্ছে কিভাবে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতির মাথা কাটতে হবে।
অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিস শহরে হওয়া সন্ত্রাসবাদী হামলার নিন্দা করেছেন। যা ভারতের স্পষ্ট মতকে বিশ্বের সামনে প্রকাশিত করেছে।