Press "Enter" to skip to content

বাংলার মহিলাদের ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে! জানালো জাতীয় মহিলা কমিশন



নয়া দিল্লীঃজাতীয় কমিশন শুক্রবার জানিয়েছে যে, পশ্চিমবঙ্গে হিংসার পর পরিস্থিতির তদন্ত করতে যাওয়া আমাদের টিম জানতে পেরেছে যে, সেখানকার মহিলারা ধর্ষণের হুমকি পাচ্ছে। আর তাঁরা এই হুমকির পর নিজেদের সন্তানদের নিয়ে রাজ্যের বাইরে যেতে চাইছে কারণ রাজ্যের তাঁদের সুরক্ষার জন্য কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

https://platform.twitter.com/widgets.js

কমিশনের প্রধান রেখা শর্মা একটি বয়ানে এও বলেছেন যে, নির্যাতিতা মহিলারা আতঙ্কে অভিযোগও জানাচ্ছে না। বলে দিই, ২ মে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর চারিদিক থেকেই নানান হিংসার সামনে এসেছে। রাজ্যে এই রাজনৈতিক হিংসার জন্য বিজেপি সমেত সমস্ত বিরোধী দলগুলোই তৃণমূলকে দায়ী করেছে। আরেকদিকে, শাসক দল জানিয়েছে যে, হিংসার নামে যেসব ভিডিও এবং ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানো হচ্ছে, সেগুলোর মধ্যে বেশীরভাগই ভুয়ো।

https://platform.twitter.com/widgets.js

উল্লেখ্য, নন্দীগ্রাম থেকে একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় হয়। ভিডিওটি নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেছেন। সেই ভিডিওটিতে এক মহিলাকে বেধরক মারধর করতে দেখা গিয়েছে। এরপর জাতীয় মহিলা কমিশনের প্রধান রেখা শর্মার নেতৃত্বে একটি দল রাজ্যের জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিষয়টি নিয়ে চর্চা করেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

মহিলা কমিশনের প্রধান রেখা শর্মা বলেন, ‘কমিশনের টিম এমন অনেক মহিলার খোঁজ পেয়েছে যারা হিংসার কারণে নিজের ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়েছে। নির্যাতিতা মহিলারা আমাদের টিমকে জানিয়েছেন যে, তৃণমূল কংগ্রেসের গুণ্ডারা তাঁদের মারধর করেছে আর তাঁদের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে।”

https://platform.twitter.com/widgets.js

রেখা শর্মা জানান, ‘মহিলারা বাড়িঘর ছেড়ে আশ্রম অথবা অন্য কোথাও গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। তাঁরা যেখানে আশ্রয় নিয়েছে, সেখানে প্রাথমিক সুবিধা উপলব্ধ না থাকায় আমি সেখানে সবরকম সুবিধা উপলব্ধ করিয়ে দিই।” কমিশন অনুযায়ী, তাঁদের টিম পাঁচ আর ছয় মে রাজ্যের সফরে এসেছিল আর সেই সময় পশ্চিম মেদিনীপুর সহ অনেক জায়গায় নির্যাতিতা মহিলাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

মহিলা কমিশন জানিয়েছে যে, রাজ্যে মহিলাদের বিরুদ্ধে বেড়ে চলা অত্যাচারের তদন্তের জন্য তাঁরা তিন সদস্যের একটি প্যানেল গঠন করেছে।