Press "Enter" to skip to content

বাংলায় আবাস যোজনায় দুর্নীতি হয়েছে, হাইকোর্টে স্বীকারোক্তি মমতা সরকারের


কলকাতাঃ নিজেদের দিকে ওঠা অভিযোগ করে নিল । প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা (abas yojna) প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ বাগবিতণ্ডা না করে কলকাতা হাইকোর্টে স্বীকার করে নিল নবান্ন (nabanna)। অভিযোগ ওঠা, মোট ১৯৭ জন এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন সেটাও মেনে নিল নবান্ন।

সূত্রের খবর, উত্তর দিনাজপুরে আবাস যোজনায় দুর্নীতির অভিযোগ করে নুরজার বেগম নামে এক মহিলা মামলা করেছিলেন হাইকোর্টে। তাঁর অভিযোগ ছিল উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপোখর বিধানসভার লোধান গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৯৭ জন সঠিক পদ্ধতিতে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পের জন্য আবেদন করেন। পরিদর্শক এসে পরিদর্শন করে গেলেও, এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন তাঁরা।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মামলাকারীর আইনজীবী রামকৃষ্ণ ভট্টাচার্য অভিযোগ করেছেন, ১৯৭ জন গ্রামবাসী আবেদন করার পরও তাঁরা যে আবাস যোজনার সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন, সেকথা আগস্ট মাসে স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়েছিল। কিন্তু তারপরও তাঁদের নামের সঠিক স্থানে পৌঁছায়নি। যার ফলে তাঁরা এই সুবিধা পাননি। আর আদালতে রাজ্যের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগকেই নিজেদের দোষ হিসেবে স্বীকার করে নিয়েছেন সরকারের পক্ষের আইনজীবী।

কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজশ্রী ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ এই মামলার শুনানিতে জানান, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্প থেকে যে ১৯৭ জন বঞ্চিত রয়েছেন, তাঁদের বিষয়টা ফেলে না রেখে যেন অবিলম্বে দেখা হয়। আর স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে যেন আগামী দুমাসের মধ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।