Press "Enter" to skip to content

বাইকে ভাঙচুর, তাণ্ডব! ত্রিপুরা থেকে ভাইরাল তৃণমূল নেত্রীর ভিডিও

 বাংলার (West Bengal) শেষ হতে ত্রিপুরাকে (Tripura) পাখির চোখ করে রেখেছে তৃণমূল (All India Trinamool Congress)। আর সেই উদ্দেশ্যেই ঘাসফুল শিবির বিপ্লবের রাজ্যে জমি মজবুত করতে মাঠে নেমে পড়েছে। বিগত কয়েকদিন ধরেই ত্রিপুরায় আনাগোনা চলছে নেতাদের। আর এরই মধ্যে গতকাল তৃণমূলের যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্যদের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।

দেবাংশু নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভ ভিডিও করে সেই ঘটনা নিয়ে সবাইকে অবগত করিয়েছেন। এবং তাঁদের উপর হামলার প্রতিবাদে তাঁরা খোয়াই থানায় রাতভর অবস্থান বিক্ষোভ করে। আর এরপরই ত্রিপুরা পুলিশ মহামারী আইনের দোহাই দিয়ে -কর্মীদের গ্রেফতার করে। দলীয় নেতা-কর্মীরা গ্রেফতার হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়ে বঙ্গের তৃণমূল নেতারা। আর আজ কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে ত্রিপুরার উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ত্রিপুরায় পৌঁছেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে একহাতে নিয়েছেন। অভিষেক বলেন, ‘বিজেপি ত্রিপুরাকে নিজের পৈতৃক সম্পত্তিতে পরিণত করেছে। ভাবছেন ত্রিপুরায় ঢুকতে গেলে ভিসা নিয়ে ঢুকতে হবে। বিরোধীরা রাস্তায় নামতে পারবে না। এখানে গণতন্ত্র বিপন্ন। সরকারকে চ্যালেঞ্জ করলে জেলে ঢোকানো হচ্ছে।”

তবে এত কিছুর মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি হচ্ছে, যা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠছে। বিজেপির নেতা তথা আইনজীবী তরুণজ্যোতি তিওয়ারি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। যেখানে তৃণমূলের এক নেত্রীকে দলীয় পতাকার ডাণ্ডা দিয়ে একটি বাইকে ভাঙচুর চালাতে দেখা যাচ্ছে। তরুণজ্যোতি ভিডিওটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘অনুপ্রানিত মিডিয়া দেখাবে না। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে ভিডিও গুলো সামনে এসেছে। তৃণমূলের মুখপাত্র “করো এক বাচ্চার” খোঁজ করছিল। মনে হয় তৃণমূল নেতা তার বন্ধুদের দেখতে পেয়েছিলেন যারা গাড়ি এবং বাইক ভাঙচুর করছিল।” বলে দিই, এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করা আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়নি।

https://platform.twitter.com/widgets.js

উল্লেখ্য, শবিবার ত্রিপুরায় ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে দুই পক্ষই নিজের মতো করে দাবি জানাচ্ছে। তৃণমূল ত্রিপুরা পুলিশ আর বিজেপির কর্মীদের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে। অন্যদিকে বিজেপি সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপিয়েছে।