Press "Enter" to skip to content

বাড়িতে লাগান এই চারটি গাছ, কোনদিনও হবে না টাকার অভাব

[ad_1]

কলকাতাঃ হিন্দু ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, দেবতারাও গাছ-গাছালিতে বাস করেন বলে বিশ্বাস করেন অনেকে। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে নিয়মিত কিছু বিশেষ গাছের আরাধনা করলে নানান গ্রহের দোষ দূর হয়। এর পাশাপাশি অনেক সুবিধাও পাওয়া যায়। বাস্তুশাস্ত্রে যারা বিশ্বাসী তারা নিশ্চয়ই জানবেন এমন কিছু বিশেষ গাছের কথা যেগুলিকে প্রতিদিন পুজো করলে জীবন থেকে আর্থিক সমস্যা চলে যায়।

হিন্দু ধর্মে তুলসী গাছকে অত্যন্ত পবিত্র বলে মনে করা হয়। গাছটি এতটাই পবিত্র বলে মনে করা হয় যে কোনো কিছুতে এর মাত্র একটি পাতা উৎসর্গ করলেই তা বিশুদ্ধ হয়ে যায় বলে ধারণা করা হয়। অনেক বিশ্বাস করেন যে বাড়িতে তুলসী গাছ লাগিয়ে প্রতিদিন সকাল এবং সন্ধ্যায় সেই গাছের পুজো করলে বাড়ির বাস্তু দোষ কেটে যায়। এছাড়াও তুলসী গাছ ধন-সম্পত্তির দেবী লক্ষ্মীর সাথে সম্পর্কিত। এমন পরিস্থিতিতে নিয়মিত তাদের পুজো করা আর্থিক সমস্যা দূর করতে সহায়ক।

তুলসীর মতো আরও একটি গাছ আছে যার নাম দাভানা। মনে করা হয় এই গাছের ধর্মীয় ও বৈজ্ঞানিক গুরুত্বও রয়েছে। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, একে তুলসীর মতোই পূজা করা হয়। বাস্তুশাস্ত্রর ধারণা অনুযায়ী বাড়ির দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে এই গাছ লাগানো শুভ। তাছাড়া আপনার যদি কোথাও ঋণ থেকে থাকে তাহলে মনে করা হয় যে রোজ এই গাছের আরাধনা করলে শীঘ্রই সেই ঋণ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

এছাড়াও আছে কলা গাছের কথা। দেবগুরু বৃহস্পতি কলা গাছে বাস করেন বলে অনেকেই বিশ্বাস করেন। এছাড়া ভগবান বিষ্ণুও এই গাছে বাস করেন বলে মনে করেন অনেকে। তাই বাড়িতে সুখ সমৃদ্ধি আনতে বাড়ির পিছনে কলা গাছ রোপণ করার উপকারী বলে মতো অনেকেরই।

শমী বৃক্ষের নাম নিশ্চয়ই অনেকেই শুনেছেন। শনিদেব এবং শিব নাকি এই শমী গাছের সাথে যুক্ত। ঘরে শমী গাছ লাগিয়ে প্রতিদিন পুজো করলে গৃহের সুখ শান্তি বজায় থাকে। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে শিব ও শনিদেবকে এর পাতা নিবেদন করলে সব ধরনের সমস্যা দূর হয়। বাস্তু অনুসারে শমী গাছ বাড়ির উত্তর-পূর্ব বা দক্ষিণ দিকে লাগাতে হবে।

[ad_2]