Press "Enter" to skip to content

বিজেপির সমর্থক মহিলাকে কান ধরে ওঠবোস করানোর পর সাফাই দিলেন তৃণমূল নেত্রী মিনাদেবী



ঃ  বুথ এজেন্টের বৌদিকে প্রকাশ্য রাস্তায় কান ধরে ওঠবোস করানোর অভিযোগ উঠল বর্ধমানের নেত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই চারিদিকে নিন্দার ঝড় বয়ে গিয়েছে। অভিযুক্ত তৃণমূল নেত্রী স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য মিতা দাস। বর্ধমানের হ্যাচারি রোড ক্যানেল পাড়ে বাজারের মধ্যে এক মহিলাকে কান ধরে ওঠবোস করিয়েছেন মিতা দাস।

বাজারের থলি হাতে ছিলেন নির্যাতিতা মহিলার মেয়ে । তাঁর পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন ওই মহিলা। আর সেই সময় সবার সামনে মহিলাকে কানধরে ওঠবোস করান মিতা দাস। যদিও, সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিতাী। তিনি বলেছেন, ‘আমি কিছুই করিনি। আমার নামে মিথ্যে রটনা হচ্ছে। আমি শুধু সেখানে উপস্থিত ছিলাম মাত্র। মিতা দেবী অভিযোগ করে বলেন, বুধবার বিজেপির কর্মীরা এলাকায় ভাঙচুর চালায়। সেই কারণে এলাকাী ক্ষুব্ধ ছিল। এরপর ক্ষুব্ধ মানুষ ওই মহিলাকে ঘর থেকে বের করে তাঁর উপর নির্যাতন করে। আমি উল্টে তাঁকে স্থানীয়দের হাত থেকে বাঁচিয়েছি।”

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, মহিলার ভাসুর সক্রিয় বিজেপি কর্মী। তিনি ভোটের দিন একটি বুথের দায়িত্বে ছিলেন। আর নির্যাতিতা মহিলাও বিজেপি সমর্থক। স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব অভিযোগ করে বলেছে, ভাসুর বিজেপির বুথ এজেন্ট আর বৌদি বিজেপির সমর্থক হওয়ায় তাঁদের উপর এহেন অত্যাচার চালানো হয়েছে। এক মহিলার রাজত্বে আরেকজন মহিলাকে এভাবে ভরা বাজারে সবার সামনে অপমান করা হয়েছে।

এই ঘটনা নিয়ে বিজেপির জেলা সম্পাদক শ্যামল রায় বলেন, ‘ওই মহিলার ভাসুর বিজেপির বুথ এজেন্ট থাকার জন্য ওনাকে শাস্তি পেটে হল। আমরা পুলিশকে বিষয়টা জানিয়েছি, কিন্তু প্রশাসন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।” আরেকদিকে, বর্ধমান উত্তরের তৃণমূল বিধায়ক নিশীথ মালিক বলেন, ‘এরকম কোনও ঘটনা ঘটেছে বলে আমি জানিনা। তবে এরকম কিছু হয়ে থাকলেও আমাদের কর্মীরা এরসঙ্গে জড়িত নেই।”