Press "Enter" to skip to content

বিভাজনের দুঃখ ভোলার নয়! ১৪ আগস্ট ‘স্মৃতি” দিবস হিসেবে পালন করার ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

নয়া দিল্লীঃ দেশ স্বাধীনের ৭৫ বছর পূরণ হওয়ার ঠিক একদিন আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র বড় সিদ্ধান্ত নিলেন। এবার থেকে প্রতি বছর ১৪ আগস্টের দিনটিকে ভারতে ‘বিভাজন বিভীষিকা স্মৃতি দিবস” হিসেবে পালন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শনিবার ঘোষণা করেন যে, ১৪ আগস্ট ভারতীয়দের বলিদান এবং সংঘর্ষের স্মৃতিতে বিভাজন বিভীষিকা দিবস হিসেবে পালিত হবে। তিনি এও বলেন যে, দেশ বণ্টনের দুঃখ কখনও ভোলা যাবে না।

একটি টুইট করে প্রধানমন্ত্রী মোদী লেখেন, দেশ ভাগের দুঃখ কখনও ভোলা যাবে না। ঘৃণা আর হিংসার কারণে আমদের লক্ষ লক্ষ ভা-বোনদের বিতাড়িত হতে হয়েছিল আর নিজের প্রাণও হারাতে হয়েছিল। তাঁদের সংঘর্ষ আর বলিদানকে স্মরণ করে ১৪ আগস্ট বিভাজন বিভীষিকা স্মৃতি দিবস হিসাবে পালন করার নির্ণয় নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘#PartitionHorrorsRemembranceDay অর্থাৎ বিভাজন বিভীষিকা দিবসের এই দিন আমাদের না শুধু বৈষম্য, শত্রুতা আর দুর্ভাবনার বিষকে উপরে ফেলার জন্য প্রেরণা দেবে, এটা আমাদের একতা, সামাজিক বৈষম্য আর মানবীয় অনুভূতিকেও মজবুত করবে।”

https://platform.twitter.com/widgets.js

উল্লেখ্য, ভারত ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবস পালন করে। আর ১৪ আগস্ট। এই ১৪ আগস্টের দিনই ভারত দুই ভাগে ভাগ হয়ে একটি নতুন দেশ পাকিস্তানের জন্ম হয়েছিল। পাকিস্তান ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশ শাসন দ্বারা ভারতের বিভাজনের পর একটি হিসেবে মান্যতা পেয়েছিল। লক্ষ লক্ষ মানুষকে বিতাড়িত হতে হয়েছিল। অনেকের প্রাণও গিয়েছিল। ভারত-পাকিস্তান দুই দেশেই দাঙ্গার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল।