Press "Enter" to skip to content

বিশ্বকে জ্ঞান ও শান্তিতে পরিপূর্ণ করতে হলে সকলকে হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে জানতে হবে: রিনি লিন, আমেরিকান বুদ্ধিজীবী


ভারতীয় উপমহাদেশে হিন্দুদের প্রতি লাগাতার ঘৃ’ণা বৃদ্ধি পেলেও পুরো বিশ্বজুড়ে অদ্ভুতভাবে হিন্দুদের সম্মান বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভারতে থাকা তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা যখন হিন্দুদের সংস্কৃতির উপর প্রশ্ন তুলছেন তখন বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তের হিন্দুরা ভারতীয় সংস্কৃতির প্রশংসায় মুখর হচ্ছেন। আসলে ভারতের হিন্দুরা এখন বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে এবং প্রত্যেক স্থানে হিন্দু জাতির উদারতা, সততা সকলকে প্রভাবিত করছে।

উদাহরণ স্বরূপ, আমেরিকা, ব্রিটেনে হিন্দুদের সংখ্যা বেশি নেই। তা সত্ত্বেও হিন্দুরা পরিশ্রম ও দক্ষতা দিয়ে প্রত্যেক ক্ষেত্রে শীর্ষ স্থানে পৌঁছেছে। হিন্দু জাতি বিশ্বে নিজেদের স্থান এতটাই শক্তিশালী করে নিয়েছে যে, হিন্দু সমাজকে সমস্থ জায়গায় বাহুখুলে স্বাগত জানানো হচ্ছে। তাতে সেটা আমেরিকা হোক বা জাপান।

https://platform.twitter.com/widgets.js

হিন্দুদের লাগাতার বৃদ্ধি পাওয়া সম্মানের উপর আমেরিকান বুদ্ধিজীবী রিনি লিন বড়ো মন্তব্য করেছেন। তবে হিন্দুদের উদেশ্য করে রিনি লিন যা বলেছেন তা ভারতীয় বুদ্ধিজীবীদের মতের সাথে নাও মিলতে পারে। আসলে রিনি লিন খোলাখুলি হিন্দুদের জ্ঞানী গুনীর জাতি বলে সম্বোধন করেছেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

রিনি লিন বলেছেন, হিন্দুরা অন্যের ধর্ম পরিবর্তন করে না। হিন্দুরা অত্যন্ত সভ্য জাতি, সকলের উচিত হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে জানা। রিনি লিনের মতে, পুরো বিশ্ব যদি রিনি লিনের সম্পর্কে জানে তাহলে বিশ্ব সুখ, শান্তিতে পরিপূর্ণ হয়ে উঠবে। উনি আরো বলেন, অন্য ধর্মে ভয় দেখানো হয় তবে হিন্দু ধর্মে শুধুমাত্র প্রেম এবং শান্তি শেখানো হয়। হিন্দু ধর্ম খুব সহিষ্ণু এবং জীবন পরিবর্তনকারী জ্ঞানের ভান্ডার।