বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট ! পৃথিবীর সবচেয়ে গরিব জননেতা হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

[sg_popup id=”9" event=”onload”][/[/sg_popup][sg_popup id=”10" event=”onload”]sg[/sg_popup]

পৃথিবীর সবচেয়ে গরিব জননেতা হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এমন একজন ব্যক্তি যিনি দেশ ও পদের প্রতি দারুন ভাবে নিজেকে সমর্পন করেন। নরেন্দ্র মোদী নিজের কাজের প্রতি এতটাই নিষ্ঠা বজায় রাখেন যে দেশবাসী কখনোই উনার কাজের সততার প্রতি প্রশ্ন তোলে না।আজ আমরা আপনাদের প্রধানমন্ত্রীর বিষয়ে এমন কিছু তথ্য জানাবো যা হয়তো দেশের কোনো মিডিয়া আপনাদের জানাবে না।আজ আমরা আপনাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সমস্থ সম্পত্তির পরিমান ও জমানো টাকার পরিসংখ্যান তুলে ধরবো।

আমাদের দেশে নেতা নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধির গতিকে দেশের সবথেকে গতিশীল বিষয় হিসেবে ধরা হয়।নেতারা নিজের পদের উন্নতি করার সাথে সাথে নিজেদের সম্পত্তিও বহুগুন বাড়িয়ে নেয় একথা সবার জানা। বর্তমানে তো দেশে অনেক বিধায়ক পদের নেতারাও শো শো কোটি টাকার সম্পত্তি নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। বহু নেতা তো অগাধ সম্পত্তি নিয়ে কারখানার খুলে ফেলেন বা বিদেশের ব্যাঙ্ক এ রাখার ব্যবস্থা করেন।
কিন্তু আমরা যদি বলি – “দেশের সব থেকে শক্তিশালী এক নেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে মাত্র ৪৭০০ নগদ টাকা রয়েছে, উনার কাছে নিজের কোনো গাড়ি নেই। নিজের কোনো বাংলো বা ফ্ল্যাট নেই। আংটি ছাড়া নিজের আর কোনো অলংকার নেই। আর জমি বলতে গেলে ২০০ স্কোয়ার ফিটের থেকেও কম জায়গা একটা ছোট বাড়ি রয়েছে।” তাহলে হয়তো আপনার অবাক হবেন।

আপনাদের জানিয়ে রাখি দেশের সবথেকে বড়ো অফিস অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় এই রিপোর্ট জানিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সম্পত্তির এই রিপোর্ট থেকে দেশের দুর্নীতিগ্রস্থ নেতাদের জন্য একটা শিক্ষা নেওয়া উচিত। তাদের শেখা উচিত যে টাকা বা সম্পত্তি সবকিছু নয়, লোকতন্ত্র রাষ্ট্রে জনতার বিশ্বাস ও ভরসা সবথেকে বড়ো জিনিস যা প্রধানমন্ত্রী অর্জন করেছেন। যতদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে ভারতের মানুষের ভরসা থাকবে ততদিন উনার কোনো ব্যাঙ্ক ব্যালান্স এর প্রয়োজন হবে না। যতদিন দেশের মানুষের মনে উনার স্থান থাকবে ততদিন থাকার জন্য উনার কোনো ফ্লাট বা বাংলোর প্রয়োজন হবে না।

আরও পড়ুন- পর পর ১৪ দিন কমলো পেট্রোল ও ডিজেলের দাম!

রিপোর্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী কাছে নিজের কোনো গাড়ি নেই।প্রধানমন্ত্রী ভারতবর্ষের মতো বড়ো দেশের সম্পত্তির ইকোনমির দেখভাল করলেও উনার পকেটে মাত্র ৪৭০০ টাকা রয়েছে।উনি জনধন যোজনার নাম ২০ কোটির বেশি ব্যাঙ্ক এর খাতা খেলানোর ব্যবস্থা করলেও, দেশের রাজধানী দিল্লিতে উনার কোনো একাউন্ট নেই।প্রধানমন্ত্রী বিদেশে যেসব নেতাদের সাথে উঠা বসা করেন তাদের অনেকেরই নিজের বিমান বা জেট রয়েছে কিন্তু প্রধানমন্ত্রী অলংকার বলতে শুধু মাত্র ৪ টি আংটি রয়েছে।

আরও পড়ুন- তৃণমূল শুন্য করে বিজেপিতে যোগ!জানেন কোথায় ?

প্রধানমন্ত্রীর কাছে মোট ১ কোটি ৪১ লক্ষ টাকার সম্পত্তি রয়েছে।আসলে নরেন্দ্র মোদীর গুজরাটের বাড়ির দাম ২৫ গুন বেড়ে গিয়েছে। ১৩ বছর আগে খুব কম দামেই একটা প্লট কিনে সেখানে বাড়ি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আসলে ওনার বাড়ি বাদ দিলে উনার মোট সম্পত্তি দাঁড়ায় মাত্র ১ লক্ষ টাকার কিছু বেশি। দিল্লির সবথেকে বড়ো অফিসের প্রধান নরেন্দ্র মোদী দিল্লিতে কোনো ব্যাঙ্ক এর খাতা খুলেননি। মোদীজির নামে ২ তো ব্যাঙ্ক খাতা রয়েছে এবং ২ টোই গুজরাটের গান্ধী নগরে রয়েছে। উনার SBI এর খাতায় ৯৪ হাজার ৯৩ টাকা জমা রয়েছে এবং রাজকোটে নাগরিক সরকারি ব্যাঙ্ক এ মোদীজির নামে ৩০ হাজার ৩৪৭ টাকা জমা রয়েছে। কিছু টাকা SBI একাউন্ট এ ফিক্স ডিপোজিট করা আছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি ডিজিটাল ইন্ডিয়ার স্বপ্নদেখা প্রধানমন্ত্রী নিজের কাছে বেশি নগদ টাকা রাখায় বিশ্বাসী নন। PMO রিপোর্ট অনুযায়ী উনি নিজের কাছে ৪৭০০ টাকা নগদ রাখেন। উনার কাছে যে ৪ আংটি রয়েছে তার মোট মূল্য ১ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন- কেন দিল্লিবাসীর কাছে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার অনুরোধ করবেন কেজরিওয়াল ?

অবাক করার বিষয় এই যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রীদের সম্পত্তির পরিমান উনার থেকে অনেক বেশি রয়েছে। অর্থাৎ সম্পত্তির দিক থেকে সবচেয়ে পিছিয়ে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন উনি নিজের মাইনে থেকে ২২ লক্ষ টাকা জমা করেছিলেন কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী পদ ত্যাগ করে দিল্লি আসার পথে উনি সেই টাকা গরিব মেয়েদের জন্য দান করেছিলেন।

মোদীজির সমকালীন অনান্য বড়ো নেতানেত্রীদের সম্পত্তির হিসেব দেখলে দেখা যায় সকলেই প্রধানমন্ত্রী মোদীর থেকে অনেক গুন বেশি সম্পত্তির মালিক। আপনারা জেনে অবাক হবেন প্রতিবেশী দেশ পাকিস্থানের প্রধানমন্ত্রীর(নওয়াজ শরীফ) সম্পত্তি নরেন্দ্র মোদীর থেকে ৬০০০ গুন বেশি। অবশ্য টাকার দিক থেকে বিশ্বে এগিয়ে থাকলেও বিশ্বের সম্মানীয় প্রধানমন্ত্রীর দিক থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অনেক এগিয়ে।

আরও পড়ুন- পাকিস্তানের খারাপ দিন সুরু,এবার থেকে ভারতের ৫০ টকা পাকিস্তানের ১০০ টাকার সমান 

Leave a Reply

Open

Close