Press "Enter" to skip to content

ভারতকে আত্মনির্ভর করতে ১০১ টি প্রতিরক্ষা সামগ্রী আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন রাজনাথ সিং

নয়া দিল্লীঃ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী () ভারতকে আত্মনির্ভর () বানাতে দেশে ১০১ টি প্রতিরক্ষা সামগ্রীর আমদানিতে সম্পূর্ণ ভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন। সরকারের প্রচেষ্টা হল ২০২০ থেকে ২০২৪ এর মধ্যে এই সমস্ত প্রতিরক্ষা সামগ্রীকে দেশেই তৈরি করার সাথে সাথে বিদেশ থেকে আমদানিতেও যেন সম্পূর্ণ ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়। সরকারের এই পদক্ষেপে একদিকে যেমন আমদানি দ্রব্যের উপর নির্ভরতা কমবে, তেমনই দেশে এই সামগ্রী উৎপাদ করে রোজগার বাড়বে।

রাজনাথ সিং বলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রালয়, আত্মনির্ভর ভারতের দিকে আরও একটি পদক্ষেপ বাড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। দেশে আমদানি করা ১০১ টি প্রতিরক্ষা সামগ্রীতে নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ার পর দেশের প্রতিরক্ষা উদ্যোগ অনেক সুযোগ পাবে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রালয় যেই ১০১ টি প্রতিরক্ষা সামগ্রীকে নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা বলেছে সেগুলোর মধ্যে কামান, সোনার সিস্টেম, ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্র্যাফট, LCH র‍্যাডার, অ্যাসল্ট রাইফেল আর পরিবহণ বিমানের নাম আছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, তিন সেনাই ২০১৫ থেকে ২০২০ পর্যন্ত ৩.৫ লক্ষ কোটি টাকার প্রতিরক্ষা সামগ্রীর টেন্ডার জারি করেছে। একটি অনুমান অনুযায়ী, আগামী ৬ থেকে ৭ বছরের মধ্যে ঘরোয়া উদ্যোগকে প্রায় ৪ লক্ষ কোটি টাকার টেন্ডার দেওয়া হবে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অনুযায়ী, আগামী ৬ থেকে ৭ বছরে এর মধ্যে প্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি টাকার উৎপাদ বায়ুসেনা আর স্থলসেনার জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে। এবং ১ লক্ষ ৪০ হাজার কোটি টাকার উৎপাদ নৌসেনার জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে।

রাজনাথ সিং জানিয়েছিলেন যে আমদানি নিষেধাজ্ঞার জন্য চিহ্নিত সামরিক আইটেমগুলির অভ্যন্তরীণ উত্পাদনের সময়সীমা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এর সাথে সাথে আগামী দিনে আরও প্রতিরক্ষা সামগ্রীতে নিষেধাজ্ঞা জারি করার জন্য সেগুলোকে চিহ্নিত করা হবে।