Press "Enter" to skip to content

ভারতের তৈরি মিসাইল কিনতে লাইন লাগিয়ে দিল বিশ্বের বহু দেশ! পেল ১০ হাজার কোটি টাকার অর্ডার

স্যামসাং বা অ্যাপলের মতো ব্র্যান্ডেড কোম্পানির তৈরি ফোনের জন্য চলতি মার্কেটে যেরকম হুড়োহুড়ি পড়ে যায় ঠিক সেরকম তৈরি মিসাইল কেনার জন্য বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশের মধ্যে প্রতিিতা শুরু হয়েছে। ভারতের থেকে মিসাইল কেনার জন্য দক্ষিণ আমেরিকা ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বহু দেশ এখন থেকেই অর্ডার দিতে শুরু করেছে। ভারত এখন থেকেই ১০,০০০ কোটি টাকার অর্ডার পেতে শুরু করেছে।

এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক ব্রহ্মোস-এনজির বিশেষত্ব:

ব্রহ্মোস-এনজি (-NG) ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রর পরীক্ষা ২০২৩ সালের মধ্যে শেষ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ব্রহ্মোস একটি সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র যা ব্রহ্মোস অ্যারোস্পেস রাশিয়ান-ভারতীয় যৌথ উদ্যোগে তৈরি। এটি রাশিয়ান NPO mashinostroeniya (কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্র কর্পো, KTRV এর একটি সহযোগী সংস্থা) এবং ভারতের ডিজাইন তৈরি করেছে। ব্রহ্মোসের প্রথম পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ হয়েছিল ২০০১ সালে।

ের লখন‌উয়ে বিশাল এলাকা জুড়ে কারখানা তৈরি করে ব্রহ্মোস মিসাইল তৈরি করা হচ্ছে। এই মিসাইল সম্পূর্ণভাবে তৈরি হয়ে যাওয়ার পর ৩০ থেকে ৩২ হাজার কোটি টাকার অর্ডার শুধুমাত্র ভারতীয় বায়ু দেবে এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো প্রায় ১০ হাজার মতো অর্ডার দিতে চলেছে।

রাশিয়ার লাইসেন্সের অধীনে গোয়া শিপইয়ার্ড লিমিটেড প্লান্টে নির্মিত হচ্ছে নতুন দুটি প্রকল্প ১১৩৫৬ তালওয়ার-শ্রেণীর ফ্রিগেটগুলি ব্রহ্মোসের সাথে সজ্জিত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ব্রহ্মোস ক্ষেপণাস্ত্রের উড়ানের পরিধি ২৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত। এটি সুপারসনিক গতিসম্পন্ন , যার ফলে ওড়ার সময় কম লাগে। ফলস্বরূপ লক্ষ্যবস্তুকে অতি সহজে চিহ্নিত করে। এটি ‘ফায়ার অ্যান্ড ফরগেট প্রিন্সিপাল’ -এ কাজ করে, লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত করার রাস্তায় বিভিন্ন ধরনের ফ্লাইটকে আক্রমণ করে। অতিরিক্ত গতিশক্তির কারণে এর ধ্বংসাত্মক শক্তি আরও বৃদ্ধি পায়। এর ক্রুজিং উচ্চতা ১৫ কিমি পর্যন্ত হতে পারে এবং টার্মিনাল উচ্চতা ১০ মিটার পর্যন্ত কম। ক্ষেপণাস্ত্রটি ২০ থেকে ৩০০ কেজি ওজনের একটি প্রচলিত ওয়ারহেড বহন করে।

ব্রহ্মোস-এনজি (নেক্সট জেনারেশন) বিদ্যমান ব্রাহ্মোসের উপর ভিত্তি করে তৈরি একটি মিনি সংস্করণ, যার ২৯০ কিমি পরিসীমা এবং সর্বোচ্চ‌ ৩.৫ গতি হবে কিন্তু এটি প্রায় ১.৫ টন, ৫ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ৫০ সেন্টিমিটার ব্যাস, ব্রহ্মোস-এনজি এমনভাবে তৈরি করা হবে যার ৫০ শতকরা হালকা এবং তার পূর্বের ব্যাচের চেয়ে তিন মিটার ছোট।

তালওয়ার-শ্রেণীর ফ্রিগেট বা প্রজেক্ট ১১৩৫৬ হল একটি শ্রেণীর স্টিলথ গাইডেড মিসাইল ফ্রিগেট যা ভারতীয় নৌবাহিনীর জন্য রাশিয়া ডিজাইন এবং তৈরি করেছে। তালওয়ার-শ্রেণীর গাইডেড মিসাইল ফ্রিগেট হল রাশিয়ান কোস্টগার্ড কর্তৃক ব্যবহৃত ক্রিভাক তৃতীয়-শ্রেণীর ফ্রিগেটের উন্নত সংস্করণ। নকশাটি রাশিয়ান নৌবাহিনীর জন্য অ্যাডমিরাল গ্রিগোরোভিচ-শ্রেণীর ফ্রিগেট হিসাবে আরও উন্নত করা হয়েছে।