Press "Enter" to skip to content

ভোটের পর কংগ্রেস আর বামেদের থেকেও প্রতিশোধ নেওয়ার হুঁশিয়ারি আব্বাস সিদ্দিকীর


কলকাতাঃ রাজ্যে তৃণমূলকে পরাস্ত করতে আর বিজেপির আগ্রাসন রুখতে হাত মিলিয়েছে বাম আর কংগ্রেস। এর পাশাপাশি আব্বাস সিদিক্কীর দল ইন্ডিয়ান সেকুলারকে নিজেদের জোটে যুক্ত করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে বামেরা। তবে বামেদের সঙ্গে আসন নিয়ে সমঝোতা হলেও কংগ্রেসের সঙ্গে কোনওমতেই বিবাদ মিটছে না ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের।

একদিকে ISF-এর প্রধান আব্বাস সিদ্দিকী যেমন নিজেদের দাবি থেকে এক পা পিছু হটতে নারাজ। আরেকদিকে, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীও আইএসএফ-কে সহজেই ছাড়ার পাত্র নন। তবে এই বিবাদ থেকে নিজেদের দূরে রাখছে বামেরা। ইতিমধ্যে নন্দীগ্রাম আর ভাঙড়ের আসন আব্বাস সিদ্দিকীর দলকে উপহার দিচ্ছে বামেরা। আরেকদিকে, আরও ৫ টি আসনও ফুরফুরা শরীফের পীরজাদার ঝুলিতে দিতে চলেছে আলিমুদ্দিন।

তবে আসন সমঝোতা নিয়ে নিজের অবস্থানে অনড় অধীর চৌধুরী। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে, মালদহ আর মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে আইএসএফ-কে একটিও আসন ছাড়বেন না তিনি। আরেকদিকে, কংগ্রেসের মধ্যেই আইএসএফ-এর সঙ্গে জোট করা নিয়ে মতবিরোধ প্রকাশ্যে এসেছে।

গতকাল কংগ্রেসের নেতা আনন্দ শর্মা সরাসরি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর দিকে আঙুল তুলে বলেছেন। তিনি দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে সাম্প্রদায়িক আইএসএফ এর সঙ্গে জোট করছেন। এতে কংগ্রেসের গান্ধীবাদী, নেহরুবাদী বিচারধারার ক্ষতি হবে। কংগ্রেস নেতা আনন্দ শর্মা এরজন্য অধীর চৌধুরীর কাজে কৈফিয়তও চেয়েছেন।

আনন্দ শর্মার এহেন মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়েছেন অধীরবাবুও। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন যে তিনি দলে হাইকম্যান্ডের নির্দেশ ছাড়া কিছুই করছেন না। আর নাম না করে আনন্দ শর্মাকে তিনি বলেছেন, কিছু নেতা দলের অভ্যন্তরে থেকে দলের ক্ষতি করছে। এদের চিনে রাখবে জনতা।

বাম-কংগ্রেসের সঙ্গে আইএসএফ-এর জোটের মাঝে ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে। যেখানে আব্বাস সিদ্দিকীকে বলতে শোনা যাচ্ছে যে, ২০২১ এর নির্বাচনের জন্য তিনি বাম আর কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মেলাচ্ছেন। একুশের পর বাম আর কংগ্রেসের থেকেও প্রতিশোধ নেবেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল এই ভিডিওটি আমাদের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তবে এই ভিডিও বামেদের ব্রিগেড সমাবেশের আগে বলে জানা যাচ্ছে।