Press "Enter" to skip to content

‘মমতাই আসল বামপন্থী” তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের দায়িত্ব পেয়ে বললেন ঋতব্রত


কলকাতাঃ একসময় চরম বিতর্কে জড়িয়েছিলেন প্রাক্তন বাম যুব নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় (Ritabrata Banerjee)। মহিলার সঙ্গে প্রতারণা থেকে শুরু করে ধর্ষণের অভিযোগও উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর একটি ভিডিও হয়েছিল। এরপর রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের তরফ থেকে যুব বাম নেতা ঋতব্রতর কড়া শাস্তির দাবিও উঠেছিল। কয়েক জায়গায় রাস্তায় নেমে প্রতিবাদও দেখানো হয়েছিল। যাইহোক … সেসব এখন অতীত।

অতীতের কালি দূরে সরিয়ে রেখে ঋতব্রত এখন তৃণমূলের বড় নেতা। গত একুশের ে তাঁকে প্রার্থী করা হবে বলে গুঞ্জনও উঠেছিল। কিন্তু তিনি টিকিট পাননি। তবে নির্বাচনের টিকিট না পেলেও, তাঁকে দূরে সরিয়ে দেননি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ( Banerjee)। এবার তাঁর কাঁধে গুরু দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি তৃণমূলের হওয়া সাংগঠনিক বৈঠকে দলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি-র রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব দেওয়ার হয়েছে ঋতব্রতকে।

দলে নতুন দায়িত্ব পেয়ে গদগদ হয়েছেন প্রাক্তন বাম নেতা। অতীতের গ্লানি ঝেড়ে ফেলে এখন তিনি দলনেত্রীর দেখানো পথে এগিয়ে যেতে চাইছেন। শ্রমিক সংগঠনের দায়িত্ব পাওয়ার পর ঋতব্রতবাবু সিপিএম-র বদলে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও প্রকৃত হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। আর দায়িত্ব পাওয়ার পর দলনেত্রীকে অকুণ্ঠ ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

দুই দশক লাল ঝাণ্ডা কাঁধে তুলে রাজ্য দাপিয়ে বেরিয়েছেন ঋতব্রত। একটানা ৮ বছরের বামেদের সংগঠন -র সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্নেহধন্য হিসেবে পরিচিত ছিলেন তিনি। আর এই কারণে রাজ্য থেকে রাজ্যসভার সাংসদ হয়ে দিল্লীতে গিয়েছিলেন ঋতব্রত। তবে ২০১৭ সালে ওনার কেচ্ছা সামনে আসার পর সিপিএম-র সঙ্গে তাঁর দুরত্ব বাড়তে থাকে। এমনকি বামেরা তাঁকে বহিষ্কৃতও করে। এরপর তিনি তৃণমূলে দেন। আর দীর্ঘ ৪ বছর পর দলের হয়ে গুরু দায়িত্ব সামলাতে ফের ময়দানে ঋতব্রত।