Press "Enter" to skip to content

মানবাধিকার কমিশন থেকে আসা লোকজন বিজেপির দালাল: শওকত মোল্লা, তৃণমূল বিধায়ক


জাতীয় মানবাধিকার কমিশন হাইকোর্টে যে রিপোর্ট পেশ করেছে তাতে বঙ্গ রাজনীতিতে জোর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। কমিশনের রিপোর্টে কুখ্যাত দুষ্কৃতীর তালিকায় রাখা হয়েছে একাধিক নেতা-মন্ত্রী-বিধায়ককে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টে কুখ্যাত দুষ্কৃতীদের তালিকায় নাম রয়েছে , , শেখ সুফিয়ানদের। এনাদের মধ্যে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক রাজ্যের মন্ত্রী। উদয়ন গুহ তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক এবং শেখ সুফিয়ান হলেন নন্দীগ্রামে ের এজেন্ট। এছাড়াও নাম রয়েছে শওকত মোল্লা, পার্থ ভৌমিক, জীবন দাস, খোকন দাসের।

এ প্রসঙ্গে তৃণমূল বিধায়ক শওকত মোল্লা বলেন, এই দেখে আমার মনে হচ্ছে মানবাধিকার কমিশন থেকে আসা লোকজন দালাল। বিজেপির দালাল না হলে এই ধরনের রিপোর্ট দিতে পারতো না। শওকত মোল্লা আরো বলেন, “আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি এটা ভেবে যে আমার নামে যেখানে কোনো মামলা নেই সেখানে এমন লিস্ট কিভাবে তৈরি হয়। তাছাড়া দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে সেই ধরণের কোনো ঘটনাও নেই। এমন অবস্থায় কিভাবে যে নামটা তালিকায় এল,ভেবে আশ্চর্য লাগছে।”

তৃণমূল বিধায়ক বলেন, ব্যানার্জী ও অভিষেক ব্যানার্জীর কাছে হার মেনে নিতে না পেরে বিজেপি তাদের দালাল পাঠিয়ে এমন রিপোর্ট সংগ্রহ করিয়েছে। আমরা এটার নিন্দা করছি এবং প্রয়োজনের দলের সাথে কথা বলে আইনি ব্যবস্থা নেব বলেও মন্তব্য করেন শওকত মোল্লা।

হাইকোর্টের তরফ থেকে কমিশনকে আদালতে তাঁদের তদন্তের রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছিল। সেই রিপোর্টে তৃণমূলের একাধিক নেতা, মন্ত্রী এবং বিধায়কদের কুখ্যাত দুষ্কৃতী বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের এই রিপোর্টের ফলে পরবর্তী হিংসা নিয়ে আবারও চাপের মুখে রাজ্য সরকার।