Press "Enter" to skip to content

মালিয়া, চোকসি আর নীরব মোদীর ১৩ হাজার কোটির উপরে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ব্যাঙ্কে ট্র্যান্সফার

নয়া দিল্লীঃ ভারতের অন্যতম কুখ্যাত অর্থনৈতিক গুলির একটিতে যেমন নাম জড়িয়ে থাকে কিংফিশার (Kingfisher) গ্রুপের মালিক বিজয় মালিয়ার (Vijay Mallya), তেমনি অন্য একটি বড় নাম হিসেবে উঠে আসে নীরব মোদী ()। ভারতের বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ৯ হাজার কোটিরও বেশি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশ পাড়ি দিয়েছিলেন বিজয় মালিয়া। অন্যদিকে কয়েক হাজার আত্মসাৎ করে দেশ ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন নীরব মোদীও।

ইতিমধ্যেই সেই টাকা উদ্ধারের জন্য এই দুই ব্যবসায়ীর সম্পত্তি ক্রোক করা শুরু করেছে ইডি (ED)। এবার কিংফিশার এয়ারলাইন্সের শেয়ার বিক্রি করে প্রায় ৭৯২.১১ কোটি টাকা উদ্ধার করল ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক নেতৃত্বাধীন কনসোর্টিয়াম। শুক্রবার এই তথ্য সকলকে জানিয়েছে ইডি। এর আগে ইডির হস্তান্তর করা সম্পত্তি বিক্রি করে প্রায় ৭১৮১.৫০ কোটি টাকা পুনরুদ্ধার করেছিল কনসোর্টিয়াম।

বিজয় মালিয়া, নীরব মোদী এবং মেহুল চোক্সি মিলে ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলি থেকে প্রায় ২২৫৮৫.৮৩ কোটি টাকা ঋণ গ্রহণ করেছিল। ইডি জানিয়েছে, তার মধ্যে ১৩ হাজার ১০৯.১৭ কোটি টাকা ইতিমধ্যেই কনসোর্টিয়ামের মাধ্যমে ব্যাঙ্কগুলিকে হস্তান্তর করা শুরু হয়েছে। যার মধ্যে ৯৩৭১ কোটি টাকার সম্পত্তি ইতিমধ্যেই ব্যাঙ্কগুলি হাতে পেয়ে গিয়েছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

শুধু বিজয় মালিয়া নয়, আদালতের তরফে অনুমতি পাওয়ার পর নীরব মোদীর ৩৭২৮.৬৪ কোটি টাকার সম্পত্তিও কনসোর্টিয়ামের হাতে হস্তান্তর করেছে ইডি। যার মধ্যে নীরব মোদীর বোন পুরবি মোদী বিদেশি অ্যাকাউন্ট থেকে ইডিকে ১৭.২৫ কোটি টাকা হস্তান্তর করেছে।

পিএমএলএর অধীনে এই তিন প্রতারকের ১৮২১৭.২৭ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ব্যাঙ্কগুলি তাদের দেয় ঋণের ৫৮% ইতিমধ্যেই ফেরত পেয়েছে। আগামী দিনে বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির বাকি টাকাও তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হবে অন্তত এমনটাই জানাচ্ছে ইডি।