Press "Enter" to skip to content

মুঙ্গের হত্যাকাণ্ড: দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের উপর পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জ ও গুলি চালানোর পর নিখোঁজ ২৪ জন

বিহারের মুঙ্গের জেলায় দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের সময় ভক্তদের উপর পুলিশের নির্মম লাঠিচার্জে ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। গুলি চলার দরুন এক যুবকের মৃত্যুও হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে পুলিশের তরফ থেকেই গুলি চালানো হয়েছে। এই ঘটনার পর থেকে এলকায় হিন্দুদের মধ্যে প্রশাসনের প্রতি আক্রোশ দেখা যাচ্ছে। অনেকে বলেছেন, হিন্দুরা রাজনৈতিকভাবে অবহেলিত হতে শুরু হয়েছে যে কারণে হিন্দুদের ধৰ্ম অনুভূতিকে দমন করার চেষ্টা চলছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে মুঙ্গেরের ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন

কেউ কেউ লিখেছেন, সাধারণ হিন্দুদের ট্যাক্সের টাকায় যে পুলিশ প্রশাসন চলছে তা এখন হিন্দুদের ধৰ্ম অনুভূতিকেই গলা চেপে ধরছে। গুলিতে এক যুবকের মৃত্যুর পর এখন মুঙ্গের নিয়ে আরেক সামনে আসছে। মুঙ্গেরে ভক্তদের উপর পুলিশের অত্যাচারের পর থেকে বেশকিছু লোকজন নিখোঁজ রয়েছে।

যারা নিখোঁজ তারা সকলেই মা দুর্গার বিসর্জনের সময় উপস্থিত ছিল। পুলিশের লাঠিচার্জের যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সেখানেও নিখোঁজ ব্যক্তিদের দেখা গেছে। মূলত পুলিশ যে সকল ব্যাক্তিদের উপর একশন নিয়েছিল তাদের এখন খোঁজ মিলছে না।

https://platform.twitter.com/widgets.js

স্থানীয় হিন্দুরা প্রশাসনকে এই বিষয়ে চিঠি লিখেছে। ২৪ জন বিসর্জনের সময় থেকে নিখোঁজ বলে জানা যাচ্ছে। বিসর্জনের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা বাসুদেবপুর থানার ইনচার্জ শিশির কুমার সিংহ ও মুফাসসিল থানার ইনচার্জ ব্রজেশ কুমার সিংকে বরখাস্ত করার দাবি তুলছেন। এই দুই ইনচার্জ কোনো অগ্রিম সূচনা ছাড়াই ফায়ারিং শুরু করে দেয়। যাতে এক যুবকের মাথায় গুলি লেগে মৃত্যু হয়। যুবকের ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যেখানে যুবকের মা ছেলের মাথাকে নিজের কোলে নিয়ে আর্তনাদ করছে।

লক্ষণীয় যে এই ঘটনা নিয়ে এসপি লিপি সিং বিবৃতি দিয়েছেন এবং পুলিশকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন। লিপি সিং বলেছেন যে পুলিশের উপর দুষ্কৃতীরা পাথর ছুঁড়েছিল যারপর পুলিশ একশন নেয়। জানিয়ে দি, এসপি লিপি সিং জেডিইউ (JDU) রাজ্যসভার সাংসদ আরসিপি সিংয়ের মেয়ে।