Press "Enter" to skip to content

মুসলিমদের দোকান থেকে কিছু কিনব না, জমি দেব না! অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পণ করলেন গ্রামবাসীরা

[ad_1]

সরগুজাঃ ‘বিবিধের মাঝে দেখ মিলন মহান” ভারতবর্ষকে আমরা চিনি বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য দিয়ে। গোটা বিশ্বের মধ্যে একমাত্র ভারতেই এত ভাষা, এত সংস্কৃতি আর এত ধর্ম ও জাতপাতের মানুষ বসবাস করেন। আর এই কারণেই ভারত বরাবরই বিশ্বে প্রশংসিত। কিন্তু, মাঝে মধ্যেই ভারত থেকেই সাম্প্রদায়িক হিংসার এমন এমন খবর উঠে আসে, যা মানবজাতির জন্য খুব ভয়ঙ্কর একটি ইঙ্গিত।

সেরকমই কিছু চিত্র দেখা গেল ছত্তিসগড় থেকে। সেখানে গ্রামবাসীরা এক হয়ে মুসলিমদের বয়কটের ডাক দেন। আর এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়ে যায়। ভাইরাল ওই ভিডিওতে গ্রামবাসীদের শপথ নিতে দেখা যাচ্ছে যে, তাঁরা মুসলিমদের দোকান থেকে কিছু কিনবেন না, মুসলিম শ্রমিকদের কাজও দেবেন না। এবং মুসলিমদের বাড়ি ভাড়া, জায়গার লিজ দেবেন না।

ছত্তিসগড়ের সরগুজা জেলার কুন্ডি কলা গ্রামের এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ভিডিওর সত্যতা যাচাই করে গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ারও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফ থেকে। জানা গিয়েছে যে, প্রতিবেশী মুসলিমদের অত্যাচারেই গ্রামবাসীরা এমন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, জানুয়ারি মাসের ৭ তারিখের ঘটনা এটি। সেদিন গ্রামবাসীরা এক জায়গায় জড় হয়ে মুসলিমদের আর্থিক ভাবে বয়কটের ডাক তোলেন। আর সেই ডাকে সারাও দেন বাকিরা। ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই পুলিশ অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তবে গ্রামবাসীরা কেনই বা এমন করলেন? এর পিছনেও রয়েছে বড়সড় একটি কারণ। জানা গিয়েছে যে, বর্ষবরণের দিনে একদল গ্রামবাসী পিকনিক করছিলেন। আর সেই সময় সেখানে আশেপাশে থাকা মুসলিমদের সঙ্গে বচসা বেঁধে যায়। এমনকি মারামারিও হয় দুপক্ষের মধ্যে। জানা গিয়েছে যে, পিকনিক করা দলের উপর দল বেঁধে এসে হামলা চালিয়েছিল প্রতিবেশী মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরা। ঘটনা থানা পর্যন্ত গড়ায়। ৬ অভিযুক্তদের গ্রেফতারও করে পুলিশ। আর এরপরেই গ্রামবাসীরা পণ করেন যে, তাঁরা মুসলিমদের আর্থিক ভাবে বয়কট করবেন।

[ad_2]