Press "Enter" to skip to content

মুসলিম পরিবারের জন্য মসজিদ বানাচ্ছে সেকুলাররা! ‘২০-৩০ বছর পর বিপদ আসবে’- বললো নেটিজনরা

পাঞ্জাবের এক গ্ে মসজিদ নির্মাণকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল চর্চা শুরু হয়েছে। আসলে ভুলার নামের গ্রামে ৪ টি পরিবার থাকেন। গ্রামে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষের সংখ্যা বেশি। ওই গ্রামে ৭ টি গুরুদুয়ারা ও ২ টি মন্দির রয়েছে। এবার গ্রামের সেকুলার লোকজন মুসলিমদের জন্য মসজিদ বানিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আর এই থেকেই শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্ক। আসলে কিছুজন সেকুলারদের এই পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন। আবার কিছুজন সেকুলারদের এই পদক্ষেপের নিন্দা করেছেন। অনেকে মন্তব্য করেছেন, এই পদক্ষেপের খারাপ পরিনতি ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ভুগতে হবে।

জানা গেছে, মন্দির তৈরির জন্য গ্রামবাসীরা ১০০ টাকা থেকে শুরু করে ১ লক্ষ টাকা অবধি দান দিয়েছেন।গ্রামের প্ৰধান পালা সিং বলেছেন, দেশ ভাগের আগে এখানে একটা মসজিদ ছিল। তবে সময়ের সাথে সাথে তা ভেঙেচুরে গেছে। আমাদের গ্রামে , শিখ, মুসলিমরা ভাই ভাই হিসেবে বসবাস করে।

গ্রাম প্রধান আরো বলেন, গ্রামবাসীরা চাই যে মুসলিম ভাইদের নামাজ পড়ার জায়গা দরকার। তাই মসজিদ নির্মাণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মসজিদ নির্মান সম্পূর্ণ হলে সেটা গ্রামের ১০ তম ধার্মিক স্থান হবে। এই ঘটনার উপর সামির আব্ নামের এক ইউজার বলেছেন, এটাই আমাদের । অন্যদিকে অমরনাথ ভরদ্বাজ নামের এক ইউজার লিখেছেন, আজকের এই পদক্ষেপ কিছু বছরের মধ্যে অভিশাপ হিসেবে ফিরে আসবে। প্রমোদ বিশ্নই লিখেছেন, এটা সুন্দর ঘটনা নয়, এরা নিজের পায়ে নিজেরাই কুড়াল মারছে। এটা যদি সুন্দর ঘটনা হয় তাহলে মুসলিমবহুল এলকায় এমন দেখা যায় না কেন।