Press "Enter" to skip to content

মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল দিলশাদ, আদালত চত্বরে গুলি করে মারলেন প্রাক্তন BSF জওয়ান বাবা

[ad_1]

গোরক্ষপুরঃ শুক্রবার বিকেলে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের দেওয়ানি আদালতের গেটে ধর্ষণের শিকার নাবালিকা মেয়ের অসহায় বাবা জামিনে মুক্ত হয়ে দিব্বি ঘোরাফেরা করা অভিযুক্ত দিলশাদ হুসেনকে গুলি করে হত্যা করে। অভিযুক্ত দিলশাদ আদালতে হাজিরা দিতে গোরক্ষপুরে এসেছিল।

রিপোর্ট অনুযায়ী, ধর্ষণে অভিযোগে অভিযুক্ত দিলশাদ হুসেন (৩০) বিহারের মুজাফফরপুর জেলার সাকরা থানার অন্তর্গত বিধানপুরের বাসিন্দা। তার বিরুদ্ধে বারহালগঞ্জ এলাকার এক নাবিলাকাকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। শুক্রবার, দিলশাদ বিচারের তারিখের জন্য গোরক্ষপুরে আদালতে এসেছিল, কিন্তু করোনার কারণে তাকে আদালতের ভিতরে যেতে নিষেধ করা হয়। এরপর দেওয়ানি আদালতের গেটের সামনে আসামি দিলশাদ তার আইনজীবীকে ডেকে নিয়ে তার সঙ্গে দেখা করে।

তবে, দিলশাদের আইনজীবী তার কাছে পৌঁছানর আগেই নির্যাতিতার বাবা দিলশাদের মাথায় পিস্তল দিয়ে গুলি করে। ঘটনাস্থলেই দিলশাদের মৃত্যু হয়। দিলশাদ হুসেনকে ধর্ষণের অভিযোগে এবং পকসো আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছিল এবং সে জামিনে মুক্ত ছিল। বর্তমানে দিলশাদের খুনের আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

https://platform.twitter.com/widgets.js

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গোরক্ষপুর পুলিশ ট্যুইট করে লিখেছে, “আজ কালেক্টরেট চত্বরের কাছে ভাগবত নিষাদ দিলশাদ হুসেনকে গুলি করে হত্যা করেছে। খুনে অভিযুক্তকে অস্ত্রসহ ধরা হয়েছে। নিহত দিলশাদ হুসেনের বিরুদ্ধে তাঁরই খুনে অভিযুক্ত ভাগবত নিষাদের নাবালিকা মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। সকল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত আছেন।”

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ধর্ষক দিলশাদের খুনে অভিযুক্ত ভাগবত নিষাদ প্রাক্তন BSF কর্মী। তিনি মেয়ের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনার বদলা নিতেই নিজের হাতে আইন তুলে নিয়েছেন।

[ad_2]