Press "Enter" to skip to content

মেয়েদের বিয়ে ১৫ বছরেই করানো উচিৎ, নাহলে ওঁরা নষ্ট প্রকৃতির হয়ে যায়ঃ শফিকুররহমান, SP সাংসদ

[ad_1]

সম্ভলঃ মেয়েদের বিয়ের বয়স (Girls Marriage Age) ১৮ থেকে ২১ বছর করানোর কেন্দ্রের প্রস্তাবে উত্তর প্রদেশের সমাজবাদী পার্টির সাংসদ শফিকুররহমান বর্ক (Shafiqur Rahman Burke) বিরোধিতা প্রকাশ করেছেন। উনি বলেছেন যে, মেয়েদের বিয়ের বয়স যদি বাড়িয়ে দেওয়া হয়, তাহলে তাঁদের মধ্যে বাচালপনা বাড়বে।

নিজের বিতর্কিত বয়ান নিয়ে হামেশাই চর্চার বিষয় হয়ে ওঠেন শফিকুররহমান বর্ক। আর এবার তিনি মেয়েদের বিয়ের বয়স বাড়ানোর কথা শুনে আবারও বিতর্কিত বয়ান দিলেন। তিনি জানিয়েছেন যে, মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে কমিয়ে ১৫ করা উচিৎ। এটাই সবথেকে ভালো হবে। বর্ক বলেন, মেয়েরা ১৪ বছর বয়সেই বড় হয়ে যায়। এই কারণে তাঁদের সঠিক সময়ে বিয়ে দিয়ে দেওয়া উচিৎ।

বর্ক বলেন, ‘বিয়ের বয়স নিয়ে নিষেধাজ্ঞা কেন জারি করা হচ্ছে? বিয়ের জন্য ১৮ বছর বয়স তো যথেষ্ট। ১৪ বছর বয়সেই মেয়েরা বড় হয়ে যায়। ১৮ বছর হওয়ার পর গরিব মেয়েদের বিয়ে দেওয়া নিয়ে অনেক সমস্যা দেখা দেয়। আর এই কারণে অনেক মেয়েদেরই আর জীবনেও বিয়ে হয় না। ভারতে বেশি বয়সে বিয়ে হওয়া ঠিক নয়।”

বলে রাখি, সফিকুর রহমান বর্ক উত্তর প্রদেশের সম্ভল থেকে সমাজবাদী পার্টির সাংসদ উনি হামেশাই বিতর্কিত বয়ান দিয়ে শিরোনামে উঠে আসেন। একসময়ে সংসদে বন্দেমাতরম গান গাইবেন না বলে জানিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি করেছিলেন। সেই সময় তিনি বলেছিলেন, আল্লাহ বাদ দিয়ে ইসলামে কারও গুণ গাওয়ার অনুমতি নেই। এছাড়াও আফগানিস্তানে তালিবান শাসন কায়েমের পর তিনি তালিবানি রাজের প্রশংসা করেছিলেন।

[ad_2]