Press "Enter" to skip to content

মোদীর নেতৃত্বে SAARC দেশের ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়ে নিজেদের কুকীর্তি জারি রাখল পাকিস্তান!

নয়া  করোনাভাইরাসের ( Virus) থেকে মোকাবিলা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদীর () আহ্বানে সার্ক (Saarc) দেশ গুলো আজ একসাথে এসেছিল। এই দেশের প্রতিনিধিরা রবিবার এই ইস্যু নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চর্চা করেন। এই চর্চায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র সংযুক্ত রাজনীতি বানানোর উপরে জোর দেন। কিন্তু পাকিস্তান (Pakistan) সেখানেও নিজেদের কুকীর্তি শুরু করে দেয়।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই বৈঠকে অংশ নেননি। ওনার জায়গায় পাকিস্তানের স্বাস্থ মামলায় সহায়ক জফর মির্জা ভিডিও কনাফারেন্সে অংশ নেন। কিন্তু পাকিস্তানে সেখানেও কাশ্মীর ইস্যু তুলে ধরে। আরেকদিকে, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোটবায়া রাজপক্ষে করোনাভাইরাসের সাথে জড়িত সমস্যার সমাধানের জন্য দক্ষ মন্ত্রিসভা গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন। করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত গোটা বিশ্বে ৫ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন।

ভিডিও কনফারেন্স নরেন্দ্র মোদী ছাড়া শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোটবায়া রাজপক্ষে, এর রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহম্মদ সোলেহ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি আশরফ গানি আর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ মামলায় বিশেষ সহায়ক জফর মির্জা যুক্ত হয়েছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই কনফারেন্সে বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ে না ঘাবড়িয়ে সাবধান হওয়া উচিৎ। উনি এই মোকাবিলায় সবাইকে এক হাত করার আহ্বান জানান। এই ভিডিও কনফারেন্সে সার্ক দেশের নেতারা প্রধানমন্ত্রী এই উদ্যোগের জন্য প্রশংসা করেন।

পাক প্রতিনিধি এই কনফারেন্সে বলেন, ে ছয়মাসের বেশি সময় ধরে নিষেধাজ্ঞা জারি আছে। মানুষ নিজের বাড়ি থেকে বেরোতে পারছে না। এর জন্য আমি ভারতকে বলতে চা যে, তাঁরা করোনাভাইরাসের কথা মাথায় রেখে জম্মু কাশ্মীর থেকে যেন নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়।