Press "Enter" to skip to content

মোদী মীরাক্কেল!! উদপির স্থানীয় মানুষরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে মন জয় করার মতো দাবি করে বসলেন।

আমাদের দেশে এইরকম অনেক মানুষ আছে যারা সবসময় প্রমান করতে ব্যাস্ত থাকে যে বিজেপি একটা হিন্দিভাষী দল, এরা এটাও প্রমান করার চেষ্টা করে যে বিজেপি একটা বিশেষ জাতিগত দল। আসলে এদের উদেশ্য মানুষের চোখে বিজেপিকে অন্য দৃষ্টিতে দেখানো এবং ভাষা ও জাতিভিত্তিতে সমাজ ভেঙে ভোট ব্যাঙ্ক সৃষ্টি করা। এরা ভুলে জান জাতি ও ভাষার উপরে উঠে আমরা ভারতীয়। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে নিন্মমানের চিন্তাভাবনা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

আজ কর্নাটকে প্রচারে গিয়ে এমন কিছু ঘটলো যা জানার পর আপনিও বুঝতে পারবেন দেশের সমস্থ প্রান্তের মানুষের মনে বিজেপির চিন্তাভাবনা প্রবেশ করেছে এবং কেউ মানুষকে ভুল বুঝিয়ে ভাষার ভিত্তিতে বিজেপি থেকে আলাদা করতে পারবে না।

আসলে প্রধানমন্ত্রী কর্নাটকে আজ ৬ ঘন্টার মধ্যে ৩ তে রালি করেছিলেন যেখানে মানুষের জনসমাগম ছিল দেখার মতো। কিন্তু কর্ণাটকের উদপিতে এমন কিছু ঘটনা ঘটেছে যা সবার মন জয় করেছে। আসলে উদপিতে হিন্দিতে ভাষণ দিতে শুরু করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী এবং হিন্দি ভাষা পরিবর্তন করে স্থনীয় ভাষার সেই বক্তব্য বলে দেওয়ার জন্য ট্রান্সলেটর উপস্থিত ছিল যা প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের লাইন শেষ হওয়ার পর পরেই প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য স্থানীয় ভাষায় বলে দিচ্ছিলেন। কিন্তু জানলে অবাক হবেন সভায় উপস্থিত সাধারণ মানুষরা হটাৎ দাবি করে যে তার প্রধানমন্ত্রীর মুখের ভাষণ শুনতেই ভালোবাসেন তাতে সেটা হিন্দি হলেও ক্ষতি নেই তারা ট্রান্সলেটর এর কাছে স্থানীয় ভাষা শুনতে চান না। সাধারন মানুষ দাবি করে তারা বিনা বাধায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শুনতে চান। শুধু তাই নয় উপস্থিত সকলে মোদীজির গলার আওয়াজ শোনার জন্য মোদী মোদী রব তুলেন।

সেই ভিডিও উপরে দেওয়া হলো।
আসলে উপস্থিত সাধারণ মানুষ বুঝিয়ে দেন ভাষাটা তাদের কাছে বড়ো ব্যাপার নয়। প্রধানমন্ত্রীর মন থেকে বেরোনো কথায় তারা ভালোবাসেন।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.